এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বর্তমানে এক বৌদ্ধ ভিক্ষু

5
এক সময়ের জনপ্রিয় অভিনেত্রী বর্তমানে এক বৌদ্ধ ভিক্ষু

মানুষ আজ একরকম কাল কেমন থাকবেন তা কেউ বলতে পারে না। তাই বড়ো বড়ো মনীষীরা বলে গেছেন কোনো অবস্থাই স্থায়ী নয়। আর এই কথার উপযুক্ত নিদর্শন অনেক আছে। তেমনই একটি অভিনেত্রী হলেন বরখা মদন। তাঁর জীবনী শুনলে তেমনটাই মনে হয়।

১৯৯৬ সালে অক্ষয় কুমার ও রেখা, রবীনা টন্ডন অভিনীত ‘খিলাড়িয়ো কা খিলাড়ি’। এই ছবিতে ছিলেন আরও এক অভিনেত্রী। তিনিই হলেন বরখা মদন। ‘খিলাড়িয়ো কা খিলাড়ি’ ছবির মাধ্যমে বড় পর্দায় প্রথম কাজ করার সুযোগ পেয়েছিলেন তিনি। ছবিটি বলিউডে সাড়া ফেলে দিলেও সেই সহ অভিনেত্রীকে কেউ অতটা নজরে আনেননি।

তারপরে তিনি এক ইন্দো – ডাচ ফিল্মেও কাজ করেন ওই বছরই। কিন্তু কোথাও তিনি বিশেষ জনপ্রিয় হয়ে পারেন নি। তবে বলিউডে নামডাক না হলেও ২০০৩ সালে পরিচালক রামগোপাল বর্মার নজরে পড়েন তিনি। আর তারপর অজয় দেবগন ও উর্মিলার ভুত ছবিতে তিনি সুযোগ পান। এই ছবিতে তিনি আর কেউ নন স্বয়ং ভুত এর চরিত্রই অভিনয় করেন তিনি। আর সেই অভিনয় সকলের চোখে পড়ে। অনেক প্রশংসা পান তিনি। তথাকথিত জনপ্রিয় হন। কিন্তু এই জনপ্রিয়তা বেশি দিন থাকে নি তাঁর। আবার বলিউড তাঁকে ভুলতে বসে। তিনি বুঝতে পারেন বলিউডে টিকে থাকতে হলে তাঁকে সব সময় ওপর মহলের সাথে যোগাযোগ রেখে চলতে হবে। এর পর কয়েকটি হিন্দি সিরিয়ালও করেন। কিন্তু তাঁর জনপ্রিয়তা বেশি দিন স্থায়ী হয়নি। তিনি ক্রমেই বুঝতে পারেন তাঁর সফল মডেলিং কেরিয়ার ছেড়ে বলিউডে এসে তিনি ভুল করেছেন।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, যেই বছর মিস ইউনিভার্সের মঞ্চে সুস্মিতা সেন ও ঐশ্বর্য্য রাই বিজয়ী হয়েছিলেন ওই প্রতিযোগিতাটিতেই রানার আপ হয়েছিলেন বরখা মদন। তাঁর পরেও অনেকদিন তিনি মডেলিং এর সাথে যুক্ত থাকলেও পরে তিনি তাঁর কোনো কেরিয়ার কেই ধরে রাখতে পারেন নি।
এমত অবস্থায়, তিনি মাঝে মাঝেই বৌদ্ধ মঠে সময় কাটাতে যেতেন। বৌদ্ধ দের নিয়ম – কানুন রীতি – নীতি তাঁর ভালো লাগতে শুরু করে।

আর শেষ অবদি তিনি একটি সিদ্ধান্ত নেন। তিনি বর্তমানে এক বৌদ্ধ ভিক্ষু। তিনি সমস্ত গ্ল্যামারাস জগৎ থেকে নিজেকে সরিয়ে নিয়ে গৌতম বুদ্ধের চরণে আশ্রয় নিয়েছেন। এখন না মডেলিং না বলিউড কোনো কিছুর সাথেই তাঁর যোগাযোগ নেই। আর এই সিদ্ধান্ত নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞেস করা হলে তিনি জানান, ‘‘এই জীবন নিয়ে আমি সন্তুষ্ট। বৌদ্ধ ভিক্ষু হওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়ে আমি কোনও ভুল করিনি।’’
শুধু তাই নয় তাঁকে সকলে এখন আর বরখা মদন নামে নয় তাঁর নতুন নাম গ্যালটেন সামটেন নামেই সকলে চেনেন।