মুঙ্গেরের ঘটনায় জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলো জাতীয় নির্বাচন কমিশন

7
মুঙ্গেরের ঘটনায় জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলো জাতীয় নির্বাচন কমিশন

সোমবার রাতে দুর্গা প্রতিমা বিসর্জনকে কেন্দ্র করে বিহারের মুঙ্গেরে রীতিমতো অশান্তি ছড়িয়ে পড়ে। বিশেষত, ঐদিন রাতে পুলিশের গুলিতে প্রাণ হারান এক যুবক। এরপর উত্তেজনা আরও বাড়তে থাকে। বৃহস্পতিবার উত্তেজিত জনতা মহকুমা শাসক ও পুলিশ সুপারের অফিসে চড়াও হয়ে অফিসে ভাঙচুর চালানোর পাশাপাশি আগুন ধরিয়ে দেন। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে অবশেষে মুঙ্গেরের জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারকে সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দিলো জাতীয় নির্বাচন কমিশন।

সোমবার রাতে, বিসর্জনের সময় নির্গত শোভাযাত্রার উপর এলোপাথাড়ি লাঠিচার্জ করতে থাকে পুলিশ। গুলিও চালানো হয়। এতে এক যুবকের মৃত্যু হয়, আহত হন আরো ৩০ জন। তারপরেই উত্তপ্ত হয়ে ওঠে এলাকার পরিস্থিতি। পুলিশের দাবি, শোভাযাত্রার মধ্যে উপস্থিত দুষ্কৃতিরাই গুলি চালিয়েছে। তবে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়া ভিডিও তে অবশ্য পুলিশকেই গুলি চালাতে দেখা গিয়েছে।

বিহারের চিফ ইলেক্টোরাল অফিসার সংবাদমাধ্যমের কাছে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে বলেছেন, মুঙ্গেরের ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে জাতীয় নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে ওই এলাকার জেলাশাসক ও পুলিশ সুপারকে দ্রুত সরিয়ে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। সেই নির্দেশ পাওয়া মাত্র মুঙ্গেরের জেলাশাসক রাজেশ মীনা ও এসপি লিপি সিংকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে।

নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে জানানো হয়েছে, মগধের ডিভিশনাল কমিশনার আসঙ্গা চৌবের নেতৃত্বে এই ঘটনার তদন্ত প্রক্রিয়া চলবে। পাশাপাশি, সাত দিনের মধ্যেই তদন্তের রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। বিহারের এডিজি জিতেন্দ্র কুমার জানালেন, ঘটনার তদন্ত চলছে। তবে যুবকের মৃত্যুকে কেন্দ্র করে উত্তপ্ত মুঙ্গেরের পরিস্থিতি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে এলাকায় টহল দিচ্ছে পুলিশ।