বৃদ্ধের দোকানটি বন্ধ করে তাঁর পেটের ভার নিল কলকাতা পুলিশ

69
বৃদ্ধের দোকানটি বন্ধ করে তাঁর পেটের ভার নিল কলকাতা পুলিশ

করোনা মোকাবিলার জন্য গোটা দেশ জুড়ে চলছে লকডাউন। ৩ মে পর্যন্ত লকডাউন বাড়িয়ে দিয়েছে কেন্দ্র সরকার। এমন কিছু পরিবার বা মানুষ রয়েছেন, যাঁরা দোকানের উপরেই নির্ভর করে থাকেন। একদিন দোকান খোলা না থাকলে খাবার জোটেনা, এরকম অনেকেই আছেন। এক বৃদ্ধ চায়ের দোকান করেই তাঁর পেট চালান।

চারদিকে যখন সব কিছু বন্ধ, সেই সময় তিনি তাঁর চায়ের দোকান খোলা রাখেন পুলিশের নজর এড়িয়ে। কিন্তু লকডাউনে দোকান খোলা রাখায়, কলকাতা পুলিশ কমিশনারকে ট্যাগ করে একজন টুইট করেছিলেন। সেই ইনফরমেশনের পেয়ে তদন্তে নামেন এন্টালি থানার ওসি।

কিন্তু ঘটনাস্থলে গিয়ে অভিযুক্তকে দেখেই মন গলে যায় ওসি-র। বৃদ্ধকে প্রশ্ন করা হয়, লকডাউনে কেন বাজারে দোকান খোলা হয়েছে? উত্তরে বৃদ্ধ বলেন, এ দোকান না খুললে পেটে তাঁর ভাত জুটবে না। তিনি আরও বলেন, তিনি জানেন, তাই ভয়ে ভয়ে দোকান খোলেন। ওই বৃদ্ধ-র চার-পাঁচ ফুট জায়গা জুড়ে বাঁশ-ত্রিপল দিয়ে তৈরি তাঁর দোকান।

দোকান বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন ওসি। পাশাপাশি তিনি আশ্বাস দেন, দোকান খোলার প্রয়োজন নেই, রেশন তাঁর বাড়িতে পৌঁছে দেওয়া হবে। তারপর তাঁর হাতে চাল-ডাল তুলে দেওয়া হয়। বৃদ্ধ জানান, এই রেশনে অনেক দিন চলে যাবে তাঁর। আর দোকান খোলার প্রয়োজন নেই। পাশাপাশি যতদিন লকডাউন থাকবে, ততদিন দোকান খুলবেন না বলে কলকাতা পুলিশকে প্রতিশ্রুতি দেন তিন।