“সম কাজ, সমবেতন” পার্টটাইম শিক্ষকদের পক্ষেই রায় দিল হাইকোর্ট

8

পার্টটাইম শিক্ষকদের বেতন প্রসঙ্গে ঐতিহাসিক রায় প্রদান করল হাইকোর্ট। পার্টটাইম শিক্ষকদেরও এবার থেকে স্থায়ী শিক্ষকদের মতই মূল বেতন দিতে হবে। উল্লেখ্য, পূর্ব বর্ধমানের দুই শিক্ষক পার্টটাইম শিক্ষকদের বেতন সম্পর্কে অসন্তোষ প্রকাশ করে রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে মামলা করেন। সেই মামলায় প্রথমে সিঙ্গেল বেঞ্চ এবং পরবর্তী ক্ষেত্রে ডিভিশন বেঞ্চের রায়ও পার্টটাইম শিক্ষকদের পক্ষেই গেল, একইসাথে হাইকোর্টে রাজ্য সরকার জোর ধাক্কা খেলো।

“আংশিক সময়ের জন্য নিয়োগ করা হলেও, তাদের স্থায়ী শিক্ষকদের মতই কাজ করতে হচ্ছে। তাহলে তারা কেন স্থায়ী শিক্ষকদের মতো বেতন এবং সুযোগ-সুবিধা পাবেন না”, এই যুক্তির উপর ভিত্তি করে হাইকোর্টে মামলা করেন পূর্ব বর্ধমানের খানদ্রা হাইস্কুলের পার্ট টাইম শিক্ষক অনির্বাণ ঘোষ এবং বিটরা হাইস্কুলের শিক্ষক বরুণ কুমার ঘোষ।

উল্লেখ্য, ২০১৯ সালে বিচারপতি মৌসুমী ভট্টাচার্যের সিঙ্গল বেঞ্চের তরফ থেকে রায় প্রদানের সময় বলা হয়েছিল, সংবিধানের “সম কাজ, সমবেতন” এর নিয়ম অনুসারে মামলাকারীর দুই শিক্ষককেই সম্পূর্ণ বেতন দিতে বাধ্য রাজ্য সরকার। এক্ষেত্রে স্থায়ী শিক্ষকদের সাথে পার্টটাইম শিক্ষকদের বেতনের বিভাজন করা যাবে না। এরপর, সিঙ্গল বেঞ্চের রায় চ্যালেঞ্জ করে ডিভিশন বেঞ্চে আবেদন করে রাজ্য সরকার।

তবে, বিচারপতি সৌমেন সেন ও বিচারপতি সৌগত ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চও পার্টটাইম শিক্ষকদের স্বপক্ষেই রায় দিল। আদালতের তরফ থেকে রাজ্য সরকারকে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে, আগামী চার সপ্তাহের মধ্যে যেন ওই দুই শিক্ষককে তাদের প্রাপ্য পাওনা মিটিয়ে দেওয়া হয়। পাশাপাশি, অবসর গ্রহণের পর পার্টটাইম শিক্ষকরা যাতে স্থায়ী শিক্ষকদের মতই সুযোগ-সুবিধা পান, সেদিকটিও সরকারকে বিবেচনা করে দেখতে বলেছে হাইকোর্ট।