বউয়ের নতুন শ্বশুর বাড়ির সামনে পোস্টার হাতে ধর্নায় বসলেন প্রথম স্বামী

23
বউয়ের নতুন শ্বশুর বাড়ির সামনে পোস্টার হাতে ধর্নায় বসলেন প্রথম স্বামী

তিনি বলেন পূর্ব বর্ধমানের অনির্বাণ বিশ্বাস। মঙ্গলকোটের সরংপুর এলাকার এই দিনমজুর করে ফেলেন একটি আশ্চর্য ঘটনা। বর্ধমানের গুসকরার শান্তিপুর এলাকায় বউয়ের নতুন শ্বশুর বাড়ির সামনে পৌঁছে গেলেন একটি পোস্টার হাতে। চলুন আসল ঘটনাটা জেনে নেই। ২০১৯ সালের সঙ্গীতা ঘোষ এর সঙ্গে বিয়ে হয়েছিল অনির্বাণের। এরপর দীপক মন্ডল নামে অন্য এক যুবককে হঠাৎ করে বিয়ে করে বাড়ি ফিরে আসেন সঙ্গীতা। এ কথা শুনতে পেয়ে ফিরে পাবার জন্য বউয়ের নতুন শ্বশুর বাড়ির কাছে ধরণায় বসেন অনির্বাণ।

পোস্টারে লেখা রয়েছে, সঙ্গীতা আমি তোমাকে খুব ভালোবাসি। তুমি আমাকে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে অন্য জনের কাছে চলে গেলে। তুমি ফিরে এসো। এদিকে সঙ্গীতা ইতিমধ্যেই নতুন স্বামীর সঙ্গে থাকতে শুরু করেছেন বুধবার থেকে। পুরনো স্বামীর এই রকম একটি কান্ড কারখানা দেখে রীতিমতো চোখ কপালে উঠে গেছে তার।

অনির্বাণ বলেন, আমি আপ্রাণ চেষ্টা করে যাবো, আমার স্ত্রীকে ফেরত পাওয়ার জন্য। আমি শ্বশুর বাড়িতে গিয়েছিলাম আমার বউয়ের, সেখানে মাকে মারধর করা হয়েছে। অনেক মিথ্যা কথা আমার নামে বলেছে আমার বউ। কিন্তু তাও বলছি ওকে প্রচুর ভালোবাসি। আমি ওকে ছাড়া বাঁচব না। আমার স্ত্রী দীপক মন্ডল নামে একজন বড়লোক ছেলেকে দেখে বিয়ে করে চলে গেছে। ওকে এত ভালোবাসি তবু কেন এমন করল ও, আমি এই কথার জবাব চাই।

এদিকে যাকে নিয়ে এত গন্ডগোল সেই সঙ্গীতা দাবি করেছেন, ওর সঙ্গে তিন মাস সংসার করেছিলাম। নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেছিলাম ঠিকই কিন্তু আমাকে খুব অত্যাচার করত। বাড়ি থেকেই সোনা নিয়ে আসতে বলতো আমাকে। একদিন গায়ে কেরোসিন দিয়ে মারতে এসেছিল। প্রচুর যন্ত্রণা সহ্য করে বাধ্য হয়ে বাড়ি থেকে বেরিয়ে গিয়েছিলাম। আমার বাড়িতে গিয়েও খুব জ্বালাতন করত আমাকে। প্রচুর মিথ্যা কথা বলেছে আমার নামে। তাই আমি নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেছি। এখানে কারোর মতামতের প্রয়োজন বোধ করি না।

শেষ পর্যন্ত বেগতিক দেখে বউয়ের শ্বশুরবাড়ি থেকে সমস্ত ধর্না সরিয়ে দেয় অনির্বাণ।