প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপানের মিয়াগি শহর, ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬.১ ম্যানিটিউড

4
প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপানের মিয়াগি শহর, ভূমিকম্পের মাত্রা ছিল ৬.১ ম্যানিটিউড

শনিবার, স্থানীয় সময় বেলা ১১.৪৪ মিনিট নাগাদ প্রবল ভূমিকম্পে কেঁপে উঠল জাপানের মিয়াগি শহর। জাপান মেটারোলজিক্যাল এজেন্সির তরফ থেকে জানানো হয়েছে রিখটার স্কেলে এদিনের ভূমিকম্পের মাত্রা ধরা পড়েছে ৬.১ ম্যানিটিউড। ভূমিকম্পের উৎসস্থল ছিল, মিয়াগি থেকে ৩৮.৭ ডিগ্রি উত্তরে এবং ১৪২.৪ ডিগ্রি পূর্ব দিকে, ভূপৃষ্ঠ থেকে প্রায় ৪০ কিমি গভীরে।

তবে স্বস্তির খবর, এ দিনের প্রবল ভূমিকম্পের পরেও কোনো ক্ষয়ক্ষতি বা প্রাণহানির খবর মেলেনি। পাশাপাশি, প্রবল ভূমিকম্প হলেও জাপানে এই মুহূর্তে সুনামির কোনো সতর্কবার্তা নেই বলে জানিয়েছেন ভূতত্ত্ববিদরা। তবে ভূমিকম্পের ঠিক দু’দিন আগেই, বিধ্বংসী সামুদ্রিক ঘূর্ণি ঝড়ের সম্মুখীন হয়েছিল জাপান। জাপানের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে আঘাত করে ঘূর্ণিঝড় হাইসেন।

সূত্রের খবর, দু’দিন আগেই জাপানের দক্ষিণ পশ্চিমাঞ্চলে অবস্থিত দক্ষিণ কায়সু দ্বীপে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় হাইসেন। আবহাওয়া দপ্তরের তরফ থেকে ঘূর্ণিঝড়ের খবর পেয়ে আগেভাগেই সতর্কতামূলক পদক্ষেপ হিসেবে উপকূলবর্তী এলাকা থেকে প্রায় ২ লক্ষ ১৮ হাজারের বেশি মানুষকে নিরাপদ স্থানে সরিয়ে নিয়ে যায় প্রশাসন।

ঘণ্টায় প্রায় ১৮০ কিলোমিটার বেগে ধাবিত হয়ে জাপানে আছড়ে পরে ঘূর্ণিঝড় হাইসেন। ঘূর্ণিঝড়ের কারণে জাপানের সমস্ত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান, ব্যবসায়ী প্রতিষ্ঠান এবং কলকারখানা গুলিকে বন্ধ করে দেওয়া হয়। পাশাপাশি বিমান এবং ট্রেন পরিষেবাও বন্ধ রাখা হয়। এই ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলবর্তী অঞ্চলে রেকর্ড পরিমানে বৃষ্টির সম্ভাবনা দেখা দেয়। পাশাপাশি উপকূলবর্তী এলাকায় সমুদ্রের জল ছাপিয়ে বন্যার পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়।