ভোটার কার্ড সংক্রান্ত হয়রানি দূর করতে এবার এক নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করলো নির্বাচন কমিশন

11
ভোটার কার্ড সংক্রান্ত হয়রানি দূর করতে এবার এক নতুন উদ্যোগ গ্রহণ করলো নির্বাচন কমিশন

ডিজিটাল ইন্ডিয়ার নতুন চমক! এবার থেকে বাড়িতে বসেই ভোটার কার্ডের ই-সংস্করণ ডাউনলোড করা যাবে। সামনেই বাংলার বিধানসভা নির্বাচন। নির্বাচনের আগে নতুন ভোটার কার্ড প্রয়োজন হলে অথবা পুরনো ভোটার কার্ড হারিয়ে গিয়ে থাকলে নতুন কার্ড পাওয়ার জন্য গ্রাহককে আর অযথা হয়রানির শিকার হতে হবে না। তারা অনায়াসে বাড়িতে বসেই অনলাইন মারফত নতুন ভোটার কার্ড পেয়ে যাবেন।

ভোটার কার্ড সংক্রান্ত হয়রানি দূর করতে সম্প্রতি নির্বাচন কমিশনের তরফ থেকে এমনই উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। সোমবার থেকেই নতুন E-EPIC পরিষেবা চালু হয়ে যাচ্ছে। এক্ষেত্রে বাড়িতে বসেই শুধু মোবাইল নম্বর অন্তর্ভুক্ত করে ভোটার কার্ডের ই-সংস্করণ ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। E-EPIC কার্যত ভোটার কার্ডের অনলাইন সংস্করণ হিসেবে কাজ করবে। কার্ডধারীরা এটির মারফত ভোট প্রদান করতে পারবেন।

শুধু তাই নয়, যে সকল ক্ষেত্রে ভোটার কার্ড প্রয়োজন হয় সেখানেও E-EPIC প্রামাণ্য নথি হিসেবে কাজ করবে। সাধারণ ভোটার কার্ড এবং এই ডিজিটাল ভোটার কার্ড, দুটোই ব্যবহার করতে পারবেন ভোটাররা। ২৫-৩১শে জানুয়ারির মধ্যে নতুন ভোটাররা ভোটার কার্ড ডাউনলোড করে নিতে পারবেন। এক্ষেত্রে যারা নির্বাচন কমিশনের ৬ নম্বর ফর্ম* করে ভোটার কার্ডের জন্য আবেদন করেছিলেন, তারাই কেবল বৈধ মোবাইল নম্বর অন্তর্ভুক্ত করে মোবাইল বা কম্পিউটারের মাধ্যমে E-EPIC ডাউনলোড করতে পারবেন।

পুরনো ভোটাররা আগামী ১লা ফেব্রুয়ারি থেকে ডিজিটাল ভোটার কার্ড ডাউনলোড করতে পারবেন। নির্বাচন কমিশনের নির্দিষ্ট ওয়েবসাইট মারফত বৈধ মোবাইল নম্বর অন্তর্ভুক্ত করলে তবেই ডিজিটাল ভোটার কার্ড ডাউনলোড করা যাবে।