তলানিতে ঠেকেছে অর্থনৈতিক অবস্থা! ভাড়া দেওয়া হচ্ছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন

19
তলানিতে ঠেকেছে অর্থনৈতিক অবস্থা! ভাড়া দেওয়া হচ্ছে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন

করোনা পরবর্তী পর্যায়ে পাকিস্তানের অর্থনৈতিক অবস্থা চরমে পৌঁছেছে। পরিস্থিতি এমনই যে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর বাসস্থানটিতেও এখন না আর তার একচ্ছত্র আধিপত্য রইলো না। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছেছে যে ইমরান খানের প্রশাসন প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনটি পর্যন্ত ভাড়া দিয়ে দিয়েছে! এই কারণেই বর্তমানে পাক মিডিয়াতে চরম সমালোচিত হতে হচ্ছে ইমরান খানকে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে পাক সরকার ঘোষণা করেছিলে যে প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনে এডুকেশন ইন্সটিটিউট হবে। এরপর আবার ২০১৯ সালে পাক প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন বিয়ে বাড়ি হিসাবে ভাড়া দেওয়া হয়। সেই নিয়েও ব্যাপক সমালোচনা শুরু হয়েছিল। পাকিস্তানের শিক্ষামন্ত্রী শফকত মাহমুদ অবশ্য জানিয়েছেন, প্রধানমন্ত্রীর বাসভবনটির রক্ষণাবেক্ষণের বার্ষিক খরচ ৪৭ লক্ষ টাকা। সেই খরচ তোলার জন্য ভাড়া দিতে হবে।

উল্লেখ্য পাকিস্তানের পরিকাঠামো উন্নয়নের জন্য প্রতিবেশী রাষ্ট্র চীনের উপর নির্ভর করে থাকতে হয়। লকডাউনে পাক অর্থনীতির উপর ব্যাপক প্রভাব পড়েছে। যার জেরে পাক প্রধানমন্ত্রীর অবস্থা প্রায় দেউলিয়ার পর্যায়ে পড়ে গিয়েছে। তবে শুধু প্রধানমন্ত্রীর বাসভবন নয়। পাকিস্তানের গভর্নরদের বাসভবনও ভাড়ায় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে পাক প্রশাসন। সেই সিদ্ধান্ত বাস্তবায়িত করতে গভর্নরদের বাসভবন এই মুহূর্তে ফাঁকা করার প্রক্রিয়া চলছে। যা নিয়েও বেজায় বিতর্ক শুরু হয়েছে।