ধরা পড়লো দেশের সবচেয়ে বড় গাড়ি চোর

10
ধরা পড়লো দেশের সবচেয়ে বড় গাড়ি চোর

ধরা পড়লো দেশের সবচেয়ে বড় গাড়ি চোর। তাঁকে সোমবার গ্রেফতার করল দিল্লি পুলিশ। জানা যাচ্ছে অনিল চৌহান নামে ওই ব্যক্তি একটা দল বানিয়ে চুরি করতেন একের পর এক গাড়ি। প্রায় ২৪ বছর ধরে তিনি পাঁচ হাজার গাড়ি চুরি করেন।
কে এই অনিল চৌহান জানা যাক।

পুলিশ সূত্রে খবর, অনিল চৌহান অসম সরকারের ক্লাস-ওয়ান কন্ট্রাক্টর ছিলেন। কিন্তু কন্ট্রাক্টর হিসাবে কাজ করার সময়ই তাঁর বিরুদ্ধে বেআইনি লেনদেনের অভিযোগ ওঠে। তাঁর বাড়িতে ইডি তল্লাশি চালায়। আর সেখান থেকে যা প্রমাণ পাওয়া যায় সেই ভিত্তিতে তাঁর সমস্ত সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করে নিলাম করে দেওয়া হয়। পুলিশ জানিয়েছে, এই ঘটনার পর থেকেই অনিল গাড়ি চুরি শুরু করেন। আর তাঁর চুরির ব্যাপারে জানলে চোখ কপালে উঠে যাবার যোগাড় হবে।

তেজপুরের বাসিন্দা অনিল একজন কুখ্যাত চোর। তিনি গাড়ি চুরির পাশাপাশি বেআইনি অস্ত্রও বিক্রি করতেন। দেশি পিস্তলের কারবারও ছিল তাঁর। এমনকি তাঁকে যখন ধরা হয় তাঁর সাথেও একটা দেশি পিস্তল ও দুটি তাজা কার্তুজ উদ্ধার হয়। একটা বেআইনি মোটরবাইকে ও পাওয়া যায় তাঁর কাছ থেকে।

তিনি মূলত গাড়ি চুরির সাথে সাথে গণ্ডারের শিং পাচারও ছিল তাঁর আরও একটি ব্যবসা। দেশের উত্তর-পূর্ব রাজ্যগুলিতে তিনি এই পাচারের ব্যবসা চালাতেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

তাঁর ব্যক্তিগত জীবনটাও ছিল চোখে পড়ার মতন। এই অনিল চৌহানের তিন তিনটে বউ রয়েছে আর সাতটা বাচ্চা। আর তাঁদেরকে নিয়েই ৫২ বছরের অনিল বিলাসবহুল জীবনযাপন করতেন। দিল্লি, মুম্বই এবং উত্তর-পূর্বের রাজ্যে একাধিক বাড়ি রয়েছে তাঁর। কিন্তু শেষ রক্ষা হলো না। শেষ অবধি পুলিশ গ্রেফতার করেছে তাঁকে। অনেক জিজ্ঞাসাবাদে অনেক তথ্যও উঠে এসেছে। অনেক বেআইনি অস্ত্রের হদিস পাওয়া গেছে। এর মধ্যে রয়েছে তিনটি দেশি পিস্তল এবং পাঁচটি তাজা কার্তুজ। একটি চুরি করা গাড়িও উদ্ধার হয়েছে। তাঁর এত বুদ্ধি যে, দিল্লির খানপুর এলাকার বাসিন্দা অনিল একটা অটোরিকশা চালাতেন পুলিশের চোখে ধুলো দেওয়ার জন্য। শুধু তাই নয় একবার একটা গাড়ি চুরি করার সময় সেই গাড়ির ড্রাইভারকে খুন করেন তিনি বলে জানা যায়।