চীনের ল্যাবরেটরিতেই তৈরি হয়েছে করোনাভাইরাস, দাবী চীনা গবেষকের

9
চীনের ল্যাবরেটরিতেই তৈরি হয়েছে করোনাভাইরাস, দাবী চীনা গবেষকের

গতবছর ডিসেম্বর মাসের দিকে চীন থেকে ছড়িয়ে পড়া মহামারী করোনা সারা বিশ্বে প্রভাব বিস্তার করতে শুরু করে। চীনের বরাবর দাবি করে এসেছে, স্থানীয় এক পশু মাংসের বাজার থেকেই ছড়িয়েছে করোনা। তবে চীনের এই তত্ব মানতে নারাজ আমেরিকা। আমেরিকা বরাবরই দাবি করে এসেছে, চীনের উহানের ল্যাবে বহুদিন ধরেই মারাত্মক জীবাণু সম্পর্কে গবেষণা চালানো হচ্ছিল। সেই গবেষণার ফলাফলই হলো আজকের করোনা মহামারী।

আমেরিকার প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প পৃথিবীতে করোনা মহামারীর সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার কারণ স্বরূপ আন্তর্জাতিক মহলে বারবার চীনকে কাঠগড়ায় তুলেছেন। তাঁর অভিযোগ, পশু বাজার থেকে নয়, চীনের ল্যাব থেকে ছড়িয়েছে করোনা। চীনা গবেষকেরা বহুদিন ধরেই মারাত্মক মহামারীর ভাইরাস নিয়ে চুপিসারে গবেষণা চালাচ্ছিলেন। প্রেসিডেন্টের এই দাবিকেই সমর্থন করলেন চীনের উহান ল্যাবরেটরির ভাইরোলজিস্ট লি মেং ইয়ান।

সম্প্রতি, একটি ব্রিটিশ টক শোয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে এই চীনা গবেষক দাবি করেছেন, চীনের ল্যাবরেটরিতেই তৈরি হয়েছে করোনাভাইরাস। তার কাছে এই তথ্যের ১০০ শতাংশ প্রমাণ রয়েছে। কৃত্রিম পদ্ধতিতে গবেষকেরাই তৈরি করেছেন এই মারাত্মক ভাইরাস। তিনি এও জানিয়েছেন, এ বিষয়ে তিনি স্থানীয় চিকিৎসকদের সাথে কথা বলেছিলেন। এরপর তার ধারণা আরো বদ্ধমূল হয়‌।

উল্লেখ্য, গবেষক লি এর আগেও একবার দাবি করেছিলেন, করোনা সম্পর্কে বরাবরই বিশ্বের কাছে ভুল তথ্য পেশ করেছে। চীন বহু আগে থেকেই জানতো সে দেশে মহামারী ছড়িয়ে পড়েছে। তবু্ও এই মারাত্মক তথ্য বেমালুম চেপে যায় বেইজিং। এমনকি, লি যেহেতু চীনের গোপন তথ্য বিশ্বের সমক্ষে প্রকাশ করেন, তাই তাকে মেরে ফেলার হুমকিও দেওয়া হয়। বর্তমানে প্রাণ ভয়ে আমেরিকায় আশ্রয় নিয়েছেন চীনা গবেষক লি মেং ইয়ান। লি এর দাবি চীনের উদ্দেশ্য সম্পর্কে আবারো একবার প্রশ্ন তুললো।