সংক্রমন থেকে বাঁচাতে দেশবাসীকে “বুস্টার ডোজ” দেওয়ার পরিকল্পনা নিচ্ছে কেন্দ্র

16
সংক্রমন থেকে বাঁচাতে দেশবাসীকে

দেশের করোনা পরিস্থিতি ক্রমাগত ভয়াবহ হয়ে উঠছে। এক বছর আগেকার স্মৃতি উস্কে দিচ্ছে বর্তমান করোনা পরিস্থিতি। দৈনিক সংক্রমণের হার ফের এক লাখ ছুঁই ছুঁই হয়ে আসছে। এমতাবস্থায় করোনা নিয়ন্ত্রণে কি ব্যবস্থা করা যায় সে সম্পর্কে উদ্বিগ্ন কেন্দ্রীয় সরকার। দেশের আমজনতাকে করোনা সংক্রমনের ক্রমবর্ধমান হার থেকে বাঁচাতে দেশবাসীকে “বুস্টার ডোজ” দেওয়ার পরিকল্পনা সম্পর্কে বিবেচনা করছে কেন্দ্র।

বুস্টার ডোজ কি? স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন, বর্তমানে দেশজুড়ে গণহারে যে টিকাকরণ কর্মসূচি শুরু হয়েছে তাতে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেওয়ার ৬ মাসের মধ্যেই ৬ মাইক্রোগ্রাম মাত্রার আরও একটি ডোজ দেওয়া হলে তাকে বলা হবে বুস্টার ডোজ। প্রসঙ্গত বর্তমানে দেশজুড়ে ভারত বায়োটেক এবং সিরাম ইনস্টিটিউট অফ ইন্ডিয়ার করোনা প্রতিরোধী ভ্যাকসিন প্রদান করা হচ্ছে।

বর্তমান পরিস্থিতি বিবেচনা করে দেশের আমজনতাকে কিভাবে করোনার সংক্রমণের হাত থেকে বাঁচানো যায় সে সম্পর্কে আলোচনা করার উদ্দেশ্যে জরুরি বৈঠকে বসতে চলেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। বর্তমানে লকডাউন নাকি টিকাকরণের উপর জোরপ্রদান সর্বাধিক গ্রহণীয় পদক্ষেপ হয়ে উঠবে সে সম্পর্কে আলোচনা করার উদ্দেশ্যেই প্রধানত এই বৈঠকের আয়োজন করেছে কেন্দ্র।

এই বৈঠকের পরই জানা যাবে দেশ আবার ফের লকডাউনের পথে এগোচ্ছে কিনা। যেমনটা হয়েছে প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশে। ভারতের প্রতিবেশী এই রাষ্ট্রটি সাত দিনের জন্য লকডাউন ঘোষণা করেছে। কেন্দ্রীয় সরকার এখন কি সিদ্ধান্ত নেয় তা জানার জন্য আগ্রহী সারাদেশ।