বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে জোর ধাক্কা খেলো কেন্দ্র

5
বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে জোর ধাক্কা খেলো কেন্দ্র

কেন্দ্রের প্রণীত বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে বিতর্কের ঝড় সুপ্রিমকোর্ট অব্দি পৌঁছেছে। বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে কেন্দ্র এবং কৃষক সংগঠনগুলির সংঘাতের পরিপ্রেক্ষিতে হস্তক্ষেপ করতে চেয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। তবে এই বিতর্কিত কৃষি আইন নিয়ে সুপ্রিম কোর্টে কেন্দ্র কার্যত জোর ধাক্কা খেলো। এদিন মামলার শুনানিতে সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি এস এ বোবদে কেন্দ্রকে সাফ জানিয়ে দিলেন, ” কেন্দ্র সরকার নিজে থেকেই আইন প্রণয়ন করা স্থগিত রাখুক, নতুবা সুপ্রিমকোর্টে তরফ থেকেই আইনে স্থগিতাদেশ আনা হবে!”

এদিন সুপ্রিমকোর্টে বিচারপতির কাছে কার্যত জোর সমালোচিত হয়েছে কেন্দ্র। নতুন কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবিতে কৃষকদের আন্দোলন চরমে পৌঁছেছে। প্রধান বিচারপতি এদিন বলেন, “এখন যদি খারাপ কিছু হয়ে যায় তাহলে তার জন্য আমরা সকলেই দায়ী থাকব। কোনো ক্ষয় ক্ষতি হোক বা আমাদের হাতে কারোর রক্তের দাগ লাগুক, তা আমরা কখনই চাইবো না।” সুপ্রিম কোর্টের তরফ থেকে এদিন কার্যত কৃষক আন্দোলনকেই সমর্থন করা হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি বলেন, উচ্চ আদালত কখনোই কৃষকদের আন্দোলন থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দিতে পারে না। তাই তারা যদি আন্দোলন চালিয়ে যেতে চান, তাহলে এই আইনে স্থগিতাদেশ জারি করার পরেও তা করতে পারবেন। তবে আইনের প্রতি স্থগিতাদেশ জারি করার পরেও তারা দিল্লি সীমান্তে আন্দোলন চালিয়ে যেতে ইচ্ছুক কি না, সেই সিদ্ধান্ত কৃষকদের উপরেই ছেড়েছে সুপ্রিম কোর্ট।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত শুক্রবারের শুনানিতে কেন্দ্রের তরফ থেকে জানানো হয়, বিষয়টি এখন কার্যত কেন্দ্র এবং কৃষক সংগঠনের মধ্যে সুষ্ঠু আলোচনার পর্যায়ে রয়েছে। তবে পরবর্তী শুনানির দিনও কেন্দ্রের তরফ থেকে কোনো আশাব্যঞ্জক উত্তর পায়নি উচ্চ আদালত। মহিলা এবং বয়স্করা এই প্রবল ঠান্ডাতেও কৃষক আন্দোলনে সামিল হচ্ছেন। কৃষকের আত্মহত্যা করছেন। তাই এবার কেন্দ্রের প্রতি কড়া বার্তা দিয়ে আইনে স্থগিতাদেশ আনার পক্ষেই সওয়াল করলো উচ্চ আদালত।