অনুব্রতর গ্রেপ্তারি নিয়ে দিল্লির পরামর্শ চাইল CBI

19
অনুব্রতর গ্রেপ্তারি নিয়ে দিল্লির পরামর্শ চাইল CBI

বীরভূমের ইলামবাজারের সুখবাজার হল দক্ষিণবঙ্গের সব থেকে বড় গরুর হাট ৷ এখান থেকে বাংলাদেশে গরু পাচারের অভিযোগ উঠেছে একাধিকবার । এমনকি, খাগড়াগড় বিস্ফোরণের পর এই হাট থেকে জঙ্গি যোগের সূত্র পেয়েছিলেন এনআইএ আধিকারিকরা । রাজ্যে গরুপাচার নিয়ে তদন্ত শুরু হয়েছে ।

জানা গিয়েছে, এই কাণ্ডে এনামূলকে গ্রেফতারের পর বীরভূমের বহু তথ্য সিবিআই-এর হাতে উঠে এসেছে । বীরভূমের তৃণমূল জেলা সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল ও তাঁর এক নিরাপত্তারক্ষীর নামও পায় সিবিআই আধিকারিকরা । গরুপাচার সংক্রান্ত তথ্য ও আর্থিক লেনদেনের সঙ্গে যুক্ত থাকার সন্দেহে এই নিরাপত্তারক্ষীকেও নোটিস দেওয়া হয়েছিল ৷

কিন্তু গরু পাচারকান্ডে পঞ্চম বারের জন্য সিবিআইয়ের জেরা এড়িয়ে গিয়েছেন অনুব্রত মণ্ডল। বিভিন্ন শারীরিক অসুস্থতা নিয়ে এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। এবার অনুব্রত কে নিয়ে কি করা যায় তা দিল্লি সদর দপ্তরের কাছে জানতে চেয়েছে সিবিআই।

তাঁরা এসএসকেএমে অনুব্রত মণ্ডলের সঙ্গে কথা বলতে গেলে কী কী আইনি পদক্ষেপ করা যায়, তা নিয়ে সিবিআই-এর সদর দফতর থেকে দিল্লির সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে । কিছুদিন আগে ভোট পরবর্তী হিংসা মামলায় ইলামবাজারের এক বিজেপি কর্মী খুনের ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য সিবিআই তলব করেছিল অনুব্রত মণ্ডলকে। কিন্তু কলকাতা হাইকোর্টের নির্দেশে তাঁকে দেখা করতে হয়নি।

তবে বিচারপতি তাঁর নির্দেশে জানিয়েছিলেন, ভবিষ্যতে অনুব্রত মণ্ডলকে সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডাকতে পারে, কিন্তু তাঁকে গ্রেফতার করা চলবে না। তারপরই গরু পাচার মামলায় তলব করা হয় তাঁকে।