ভোটের প্রথম দিনই উদ্ধার হলো বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ, ক্ষোভ উগরে দিলেন দিলীপ ঘোষ

5
ভোটের প্রথম দিনই উদ্ধার হলো বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ, ক্ষোভ উগরে দিলেন দিলীপ ঘোষ

প্রথম দফার নির্বাচনে মেতেছে বাংলা। ভোট উপলক্ষে হিংসা, হানাহানি, অশান্তির পরিস্থিতি তৈরি হওয়ার ঘটনায় এই রাজ্যে নতুন কিছু নয়। প্রথম দফার ভোটের দিন সকালেই এক বিজেপি কর্মীর মৃতদেহ উদ্ধার হলো তারই বাড়ির উঠোন থেকে। পরিবারের দাবি, আগের দিন রাত থেকেই নিখোঁজ ছিলেন ওই বিজেপি কর্মী। ঘটনাটি ঘটেছে পশ্চিম মেদিনীপুরের কেশিয়াড়ি বেগমপুরে। ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে উত্তপ্ত রাজনৈতিক মহল।

এমন ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে তৃণমূলের উপরেই সকল দায়ভার চাপিয়েছে বিজেপি। বিজেপির দাবি, তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনীই ওই বিজেপি কর্মীকে পিটিয়ে খুন করে তার বাড়ির উঠোনে মৃতদেহ ফেলে দিয়ে গিয়েছে। দলীয় কর্মী খুন হওয়ার বিষয়ে তৃণমূলের প্রতি ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি জানিয়েছেন, ঘটনা প্রসঙ্গে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানানো হয়েছে।

দিলীপ ঘোষ এদিন আরো বলেছেন, মানুষকে ভয় দেখাতেই এমন কাণ্ড করেছে তৃণমূল। তবে সাধারন মানুষ ভয় পাবেন না। তাছাড়া কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে। তারাও সব দেখছেন। সাধারণ মানুষের প্রতি এদিন দিলীপ ঘোষের বার্তা, এমন হিংসার ঘটনাকে ভয় পাবেন না। বরং বাড়ি থেকে বেরিয়ে ভোট দিয়ে তাদের যোগ্য জবাব দিন। পাশাপাশি বিরোধীদের প্রতিও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন দিলীপ।

বিরোধীদের প্রতি দিলীপ ঘোষের বার্তা, বিজেপি কর্মীরা প্রতিনিয়ত আহত হচ্ছেন। তাদের জীবন সংকট দেখা দিয়েছে। সাধারণ মানুষ এমন ঘটনা আর সহ্য করবেন না। তাই যারা ভয় দেখানোর জন্য এমন কাণ্ড করছেন তারা সাবধান। মানুষ তাদের যোগ্য জবাব দেবেন। প্রসঙ্গত, তৃণমূল অবশ্য অভিযোগের দায় স্বীকার করতে নারাজ। তাদের পাল্টা দাবি, তৃণমূলের বিরুদ্ধে কুৎসা রটাতেই এই অভিযোগ করছে বিজেপি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে ঘটনাস্থলে কেন্দ্রীয় বাহিনীর পাশাপাশি বিশাল পুলিশবাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে।