বিয়ের পর স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ার ক্ষোভে পরপর ১৮ জন মহিলাকে খুন করে গ্রেপ্তার যুবক

5
বিয়ের পর স্ত্রী পালিয়ে যাওয়ার ক্ষোভে পরপর ১৮ জন মহিলাকে খুন করে গ্রেপ্তার যুবক

জুবিলী হিলসের সাংঘাতিক এক ঘটনার তদন্তে নেমে, অবাক তেলেঙ্গানা পুলিশ। এত বছর থেকে চাকরি করে আসা দুঁদে পুলিশ অফিসারেরাও ঘটনা শুনে চোখ কপালে তুলেছেন। এটি একটি সিরিয়াল কিলিং এর ঘটনা। প্রমাণ লোপাট করার জন্য পেট্রোল ঢেলে পুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে মুখ। এইসব ঘটনা শোনার পর এই তদন্ত চালায় পুলিশ, টানা কুড়ি দিনের চিরুনি তল্লাশির পরে হাতেনাতে ধরা পড়ে সিরিয়াল কিলার মাইনা রামুল।

পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে রামুল এই সমস্ত হত্যার ঘটনা। তিনি এক ব্যাক্তি গত কারণের জন্যই এইসব কাজ শুরু করেন। তিনি পুলিশকে জানায় বিয়ের কয়েক দিনের মধ্যেই, স্ত্রী পালিয়ে যায় পরপুরুষের সাথে। আর তারপর থেকেই মহিলাদের উপর আক্রোশ জন্মায় তার। পরপর ১৮ জন মহিলাকে খুন করে সে। পরে পুলিশের খাতা খতিয়ে দেখা হয়, ও তার পরেই অনেক অপরাধমূলক কাজের সাথে যুক্ত পাওয়া যায় তার নাম।

একজন মহিলা খুনের অভিযোগে গত ৪ জানুয়ারি তাকে গ্রেফতার করা হয়। এর পরেই কেঁচো খুড়তে বেড়িয়ে আসে কেউটে।একের পর এক শিয়াল কিলিং এর নিশংস ঘটনা প্রকাশ্যে আসতে থাকে তার। জেরায় রামুলু জানায়, সরাইখানায় যে সমস্ত মহিলারা একা আসত তাদের টার্গেট করত সে। শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব দেওয়া হতো তাদের, রাজি হলেই বন্ধুত্ব স্থাপন, তারপরেই সখ্যতা তৈরি। এমন করতে করতে খুন করে দামি জিনিস নিয়ে চম্পট দিত সে। মেহেবুবানগর, রাচাকোন্দা, রাঙ্গারেড্ডি সব জায়গার ১৮ জন মহিলাকে খুন করেছে সে এমনটাই জানা গেছে পুলিশ সূত্রে।।