ভয়ঙ্কর সৌর ঝড়ে ধ্বংস হতে চলেছে বিশ্বের যাবতীয় ইন্টারনেট সিস্টেম! আশঙ্কা গবেষকদের

20
ভয়ঙ্কর সৌর ঝড়ে ধ্বংস হতে চলেছে বিশ্বের যাবতীয় ইন্টারনেট সিস্টেম! আশঙ্কা গবেষকদের

ভয়ঙ্কর সৌর ঝড় ধেয়ে আসছে সৌরজগতে। যার ফলে সারা বিশ্বের যাবতীয় ইন্টারনেট সিস্টেম এক লহমার মধ্যে ভেঙে চুরমার হয়ে যেতে পারে। যা ঠিক হতে বেশ কয়েক সপ্তাহ থেকে শুরু করে বেশ কয়েক মাস পর্যন্ত সময় লেগে যেতে পারে। এই ধরনের সৌরঝড়কে বিজ্ঞানের পরিভাষায় বলা হয়, ‘করোনাল মাস ইজেকশান (সিএমই)’। যা কার্যত গোটা সৌরমণ্ডলের পক্ষে বিপদজনক।

আমেরিকার আরভিনে ক্যালিফোর্নিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের সাম্প্রতিক একটি গবেষণা এই ভয়ের বার্তা দিয়েছে। এই গবেষণাপত্রটি এখন পিয়ার রিভিউ পর্যায় পেরিয়ে একটি আন্তর্জাতিক বিজ্ঞান গবেষণা পত্রিকায় প্রকাশ হওয়ার অপেক্ষা। মঙ্গলবার অনলাইনে এই গবেষণাপত্রটি প্রকাশিত হয়েছে। ১৮৫৯ আর ১৯২১ সালে এই ধরনের সমস্যার মুখে পড়তে হয়েছিল পৃথিবীকে।

১০০ বছর পর ফের একই রকমের ভয়ঙ্কর সৌরঝড়ের মুখোমুখি হতে চলেছে সারা বিশ্ব। ১৯২১ এই ধরনের সৌরঝড়ে পৃথিবীর ভয়ঙ্কর ক্ষতি হয়েছিল। এমন সৌর ঝড় এর বৈজ্ঞানিক পরিভাষায় নাম দেওয়া হয়েছিল ‘ক্যারিংটন এফেক্ট’। ওই ঝড়ের প্রভাবে পৃথিবীকে ঘিরে থাকা বিশাল চৌম্বক ক্ষেত্রে বড় বড় ফাটল ধরেছিল। অত্যন্ত বিষাক্ত সৌরকণা আর মহাজাগতিক রশ্মি ঢুকে পড়েছিল সেই ফাটল ধরে।

গবেষকরা জানিয়েছেন এমন ভয়ঙ্কর সৌরঝড় বা সিএমই-র পৃথিবীর উপর আছড়ে পড়ার সম্ভাবনা প্রতি দশকে থাকে ১.৬ শতাংশ থেকে ১২ শতাংশ। ১৮৫৯ এবং ১৯২১ সালের মতো তীব্রতায় অতটা না হলেও ১৯৮৯ সালের মার্চে যে সৌর ঝড় পৃথিবীর বুকে ধেয়ে এসেছিল তার ঝাপ্‌টায় কানাডার গোটা কুইবেক প্রদেশে টানা ন’ঘণ্টা ‘ব্ল্যাক আউট’ হয়ে গিয়েছিল। এ বার যে ভয়ঙ্কর সিএমই আসছে তাতে পৃথিবীতে সমুদ্রের নীচ দিয়ে এক মহাদেশ থেকে অন্য মহাদেশে যাওয়া ইন্টারনেটের যাবতীয় কেবল ক্ষতিগ্রস্ত হতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন বিজ্ঞানীরা।