আপনার স্বামীকে কে বলুন গরীবের টাকা মেরে ফুর্তি না করতে! সুদিপা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ এক নেটিজেনের

12
আপনার স্বামীকে কে বলুন গরীবের টাকা মেরে ফুর্তি না করতে! সুদিপা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ এক নেটিজেনের

জি বাংলার অতি জনপ্রিয় একটি শো হলো রান্নাঘর। তবে দীর্ঘদিন ধরে সুদীপা বন্দ্যোপাধ্যায় এই রান্নাঘরের সঞ্চালিকা হিসাবে এতটাই পরিচিতি লাভ করেছেন যে, আমরা অনেকেই এই শো কে বলে থাকি সুদিপার রান্নাঘর। বর্তমানে সুদীপা বন্দ্যোপাধ্যায় শুরু করেছিলেন ব্র্যান্ড সুদীপা কালেকশন। রান্না ঘরের মাঝে মাঝে তাকে দেখতে পাওয়া গিয়েছিল বিশেষ কিছু গহনা এবং শাড়ির বিজ্ঞাপন দিতে। চিরকালই গয়নার প্রতি ভালোবাসা সুদীপার, একথা আমরা সকলেই জানি। ভারী হালকা সব রকমের গহনা পড়তে ভালোবাসেন তিনি।

কিন্তু কিছুদিন আগে তার একটি ফেসবুক পোস্ট নিয়ে শুরু হয়েছিল জল্পনা-কল্পনা। সেখানে তিনি মেদিনীপুরের শিল্পী যিনি কিনা গয়নার বড়ি বানাতে জানেন, সেই রকম একটি মানুষের খোঁজ করছিলেন। এমন কোন মানুষ থাকলে তার সঙ্গে যোগাযোগ করার কথা তিনি জানিয়েছিলেন। কমেন্ট বক্সে অনেকেই গয়না বড়ি নিয়ে কৌতুহল প্রকাশ করেছেন। তবে তার মধ্যে একজন নেটিজেন সুদিপার স্বামীকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করেছেন যা নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় শুরু হয়ে যায় হুলুস্থুল কাণ্ড।

রিক মজুমদার নামক ওই ব্যক্তি কার্যত ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করে লেখেন, সুদ্বীপা বন্দ্যোপাধ্যায়, আপনার হাজব্যান্ড কে বলুন গরীবের টাকা মেরে ফুর্তি না করতে। উনার লজ্জা লাগার দরকার। আর আপনার অ্যাকাউন্ট ট্যাঁনট মিস্টার সঞ্জয় কে বলে দেবেন যে, যেটা উনি করেছেন, ঠিক করেননি। গরীব লোককে ভাতে মেরে যদি আপনি খুশি হন তাহলে আপনারা মানুষের পর্যায়ে একেবারেই পড়েন না। আপনাদের কোনদিন ভালো হতে পারে না। এটা আমাদের অভিশাপ।

পাশাপাশি ঋত্বিক মজুমদার আরো লেখেন, প্রযোজক অগ্নিদেব চট্টোপাধ্যায় তাকে ব্লক করে রেখেছেন, তাই বাধ্য হয়ে তিনি সুদীপা  বন্দ্যোপাধ্যায় এর পোস্ট এ অভিযোগ জানিয়েছেন। এমনকি সমস্ত সত্যতা যাচাই করার জন্য তাকে ফোন করলে তিনি সমস্ত কথা বলতে পারেন। তার কাছে ফোন কল রেকর্ড থেকে শুরু করে অন্যান্য সমস্ত প্রমান আছে।

এখনো পর্যন্ত এই নিয়ে সুদীপা বন্দ্যোপাধ্যায় কোন কথা না বললেও সোশ্যাল মিডিয়াতে অনেকেই এই পোস্ট ঘিরে নিজেদের মতামত প্রকাশ করেছেন। আসল ঘটনা যে কি, সেটা এখনো পর্যন্ত সকলের কাছে অজানা।