টেট এর প্রশ্নপত্রে ভুল! মামলাকারীদের ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

16
টেট এর প্রশ্নপত্রে ভুল! মামলাকারীদের ক্ষতিপূরণের নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট

টেট এর প্রশ্নপত্র ছিল ভুলে ভরা! একটি চাকরি পরীক্ষার ক্ষেত্রে এত ভুল স্বভাবতই পরীক্ষার্থীদের মনে বিপরীত প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে কলকাতা হাইকোর্টে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের বিপক্ষে মামলা করেছিলেন চাকরিপ্রার্থীরা। সেই মামলার রায় বেরোলো শুক্রবার। শুক্রবারের এই মামলার রায় গিয়েছে আবেদনকারীদের পক্ষে। একইসঙ্গে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে বিপুল অঙ্কের অর্থ জরিমানা করেছে হাইকোর্ট।

২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার পর পরীক্ষার্থীদের একাংশ কলকাতা হাই কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন এই অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে যে ওই পরীক্ষাতে ছয়টি প্রশ্ন ভুল ছিল। সেই মামলা চলাকালীন কলকাতা হাই কোর্টের বিচারপতি ছিলেন সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়। এই বিষয়ে সমাধানের জন্য তৎকালীন বিচারপতি বিশ্বভারতীকে একটি কমিটি গঠন করে মামলার তদন্ত করার দায়িত্ব দেন। বিশেষজ্ঞরা প্রশ্ন গুলোকে খতিয়ে দেখেছে এবং তার মধ্যে ভুল খুঁজে পেয়েছেন।

বিশেষজ্ঞদের রিপোর্টের ভিত্তিতে ২০১৮ সালের ৩ অক্টোবর আদালত নির্দেশ দেয়, যারা ওই ৬ টি প্রশ্নের উত্তর দিয়েছিলেন তাদের প্রত্যেককে পুরো নম্বর দিতে হবে। যদিও হাইকোর্টের এই নির্দেশ অমান্য করেছে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। এই মামলার পরিপ্রেক্ষিতে ১৯ জন চাকরিপ্রার্থী হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন। তারা দাবি করেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের তরফ থেকে তাদের সহযোগিতা করা হয়নি। উল্টে তাদের হেনস্থা করা হয়েছে।

শুক্রবার হাইকোর্টের বিচারপতি অরিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়ের সিঙ্গল বেঞ্চে এই মামলার শুনানি হয়েছে। আদালতের তরফ থেকে শুনানি প্রদান করতে গিয়ে ১৯ জন আবেদনকারীর প্রত্যেককে ২০ হাজার টাকা করে দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। আগামী ৭ দিনের মধ্যে মামলাকারী পরীক্ষার্থীদের ওই ৬টি প্রশ্নের নম্বর দিতে হবে বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।