মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পড়েই আফগানিস্তান দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে তালিবান জঙ্গিরা

10
মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের পড়েই আফগানিস্তান দখলে মরিয়া হয়ে উঠেছে তালিবান জঙ্গিরা

সম্প্রতি আফগানিস্তান থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন আমেরিকান প্রেসিডেন্ট। সেইমতো কাজ এগোতেই সমস্যার সূত্রপাত হলো। আফগানিস্তানের উপর তালিবানদের নজর ছিল বরাবর। এতদিন মার্কিন সেনাদের জন্য তারা কিছুটা হলেও দমেছিল। তবে এখন আর সেই বালাই নেই। অতএব তালিবানরা এখন পূর্ণোদ্যমে আফগানিস্তানের উপর প্রভাব বিস্তার করতে ব্যস্ত। আন্তর্জাতিক মহলের আশঙ্কা সত্যি প্রমাণিত হলো।

এমনটা যে হতে পারে তা আগে থেকেই আশঙ্কা করেছিলেন আন্তর্জাতিক মহলের কূটনীতিবিদরা। সেই জন্য আমেরিকা যাতে আফগানিস্তান থেকে সেনা প্রত্যাহার না করে সেই মর্মে বারংবার আবেদন জানানো হয়েছিল মার্কিন প্রেসিডেন্টের কাছে। তবে তাতে অবশ্য লাভ কিছুই হয়নি। মার্কিন সেনা সরে যেতে না যেতেই আফগানিস্তান দখলে ব্যস্ত হয়ে উঠেছে তালিবান জঙ্গিরা। আফগানিস্থানের মেইদান ওয়ারদক প্রদেশের দুটি জেলা নাকি তালিবানিরা ইতিমধ্যেই দখল করে নিয়েছে বলে জানা যাচ্ছে।

বিগত বেশ কিছুদিন ধরেই রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ ঘটে চলেছে আফগানিস্তানে। গত ১২ই মে থেকে ১৫ই মে পর্যন্ত যুদ্ধবিরতি ঘোষণা করেছিল তালিবানরা। তবে তারপর থেকেই আবার উত্তপ্ত হয়ে উঠেছে আফগানিস্থান। ১৫ই মের পর থেকে অন্ততপক্ষে ১৮টি জেলায় তালিবান ও আফগান সেনার মধ্যে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গিয়েছে।

শুক্রবার মেইদান ওয়ারদক প্রদেশের এক সাংসদ জানালেন যে, জালরেজ জেলাটিও ইতিমধ্যে তালিবানের দখলে চলে গিয়েছে। পরপর তিন দিনের সংঘর্ষে আফগানিস্তানের সেনাবাহিনীর সাত জন সেনা জওয়ান নিহত হয়েছেন। এই লড়াইয়ে পাঁচজন তালিবানিও খতম হয়েছে বলে জানানো হয়েছে। এ ছাড়াও বহু সেনা জওয়ানকে নাকি বন্দীও করেছে তালিবানি জঙ্গীরা। এমনটাও জানা গিয়েছে।