দেখে নিন ভারতের এই জায়গা গুলি যেখানে ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ

33
দেখে নিন ভারতের এই জায়গা গুলি যেখানে ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ

বাঙালি তো ঘুরতে ভালোবাসে। আমাদের এই দেশ ভারতবর্ষে এমন কয়েকটা জায়গা আছে যা ভারতীয়দের জন্যই নিষিদ্ধ। সেই সমস্ত স্থানগুলি দেখে নিন।

  1. হাইল্যান্ডস লজ-তামিলনাড়ু-

ওয়েলকাম, নমস্তে, প্রে স্টে অ্যাট দিস ওরদি লজ- হেডিং থাকলেও এটি শুধুমাত্র যাদের পাসপোর্ট আছে তাদের জন্যই। হ্যাঁ অবশ্যই ভারতীয়রা থাকতে পারবে যদি তাদের কাছে বিদেশি পাসপোর্ট থাকে। রিক্সাওয়ালাদের কথায়, একশো ষাট বছর আগে নবাবের এই স্থানে সকলে জায়গা পেলেও এখন শুধুমাত্র “ফিরিঙ্গিরাই” থাকতে পায়। আসল ব্যাপার হল, বিদেশিরা মোটা টাকার বিনিময়ে থাকতে চায় কিন্তু স্থানীয়রা অল্পদামে ভালো জায়গায় থাকতে চায়।

2. দ্য ইউনো ইন হোটেল- ব্যাঙ্গালোর, কর্নাটক-

ব্যাঙ্গালোরে ২০১২ সালে এই হোটেলটি তৈরি হয়। মূল জাপানিদের জন্যই এই হোটেলে ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ। দুবছর পরে পুলিশি তদন্ত অনুযায়ী, তুমুল জাতিগত বিদ্বেষ তৈরি হওয়ার পর হোটেলটি বন্ধ হয়ে যায়।

3. ফ্রিকাসোল ক্যাফ, হিমাচলপ্রদেশ-

আপনার হয়তো জায়গার নাম শুনে মনে হলো তো এখানে বিনামূল্যে প্রবেশ করা যাবে? কিন্তু এটা ভুল। কারণ ইজরায়েলের মালিক এই ক্যাফে বানানোর সময় বিদেশিদের আকর্ষনের জন্য এরকম নাম দিয়েছিলেন। এটি একটি পার্টি প্লেস।যেখানে ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ। ইউটিউবে এখানকার অনেক ছবিও দেখা যায়। কথিত আছে এই ক্যাফের ম্যানেজার ও রাঁধুনি মিলে ভুলবশত সাদা চামড়ার মানুষদের জন্য এমন একটি মেনু রান্না করেছিলেন যা ভারতীয়দের জন্য গ্রহন যোগ্য নয়। সেই কারণেই ভারতীয়দের সঙ্গে তাঁদের ঝামেলা হয় এবং প্রবেশ নিষিদ্ধ হয়ে যায়।

4. ফরেনারস-অনলি বীচ- পুদুচেরি-

এই বীচটিতে শুধুমাত্র বিদেশিদের জন্যই বিখ্যাত, ভারতীয়দের প্রবেশ নিষেধ। শুধু তাই নয় ভারতীয়দের প্রবেশ নিষিদ্ধ বোঝাতে হোটেল মালিকরা দড়ি বা ব্যারিকেড করে দিয়েছে। অনেক কাকুতি মিনতি করে যদি হোটেলে প্রবেশ করার অনুমতি মেলে পিছনের দরজা দিয়ে।

5. সাকুড়া রয়োকান রেস্টুরেন্ট-আমেদাবাদ-

আহমেদাবাদের গোকুলধাম রোডের কাছে এটি মূলত জাপানিদের হোটেল। যদিও হোটেল মালিক একজন ভারতীয়। কারণ হিসেবে তিনি জানিয়েছেন তাঁর সমস্ত কর্মচারীরাই উত্তর-পূর্বের। আর তাঁরা জাপানিদেরই নিয়ে আসতে সক্ষম, তাই তাদের চাপেই তিনি এটি ভারতীয় প্রবেশ নিষিদ্ধ করেছেন।