লোকাল ট্রেন কিংবা মেট্রো চালানোয় কি সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী দেখে নিন

44
লোকাল ট্রেন কিংবা মেট্রো চালানোয় কি সিদ্ধান্ত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী দেখে নিন

রাজ্য জুড়ে লকডাউনের বিধি নিষেধ আরো ১৫ দিন বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। করোনার সংক্রমণের গ্রাফ নিচে নামানোর জন্য দীর্ঘ প্রায় দুই মাস যাবত লকডাউন পালন করা হতে চলেছে রাজ্যে। লকডাউনের এই নতুন পর্যায়ে অবশ্য বেশ কিছু ক্ষেত্রে ছাড় দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তবে এখনই লোকাল ট্রেন কিংবা মেট্রো চালানোর সিদ্ধান্ত অনুমোদন দেননি তিনি।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তৃতীয়বার মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে শপথ গ্রহণ করার পরেই লোকাল ট্রেনের পরিষেবা বন্ধ করে দেন। রাজ্যের ক্রমবর্ধমান করোনার গ্রাফ নামানোর জন্যই কার্যত এমন সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছিলেন তিনি। আসন্ন দফায় অবশ্য সরকারি এবং বেসরকারি বাস অর্থ এবং টোটো চালানোর ক্ষেত্রে আর কোনো বিধিনিষেধ নেই। তবে লোকাল ট্রেন এবং মেট্রোরেল চালু করা হচ্ছে না।

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, এখনই আপাতত মেট্রোরেল এবং লোকাল ট্রেন চালু করার কোনো পরিকল্পনা নেই সরকারের। স্টাফ স্পেশাল ট্রেন যেমন চলছে, তেমনি চলবে। তবে সাধারণ মানুষের জন্য ট্রেনের দরজা এখনো খোলা হচ্ছে না। এতে সংক্রমণের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পারে বলে আতঙ্কিত মুখ্যমন্ত্রী। অতএব নিত্যযাত্রীদের সমস্যা দূর হওয়ার কোনো সম্ভাবনা এখনই নেই। জরুরী পরিষেবা সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা অবশ্য স্পেশাল ট্রেনের পাশাপাশি মেট্রোরেলেও সফর করতে পারছেন।

মুখ্যমন্ত্রীর অনুমোদনক্রমে সোমবার থেকে কবি সুভাষ -দক্ষিণেশ্বর পর্যন্ত দিনে মোট ৬২ টি মেট্রো চলছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, লোকাল ট্রেন পরিষেবা দীর্ঘদিন যাবৎ বন্ধ থাকার দরুন সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভ দানা বেঁধেছে। রাজ্যের বিভিন্ন স্টেশনে নিত্যযাত্রীরা বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন। রেল কর্তৃপক্ষের তরফ থেকেও রাজ্য সরকারের কাছে লোকাল ট্রেন চালু করার অনুমতি চাওয়া হয়েছে। যার ফলে অনেকেই আশা করেছিলেন ১লা জুলাই থেকে মুখ্যমন্ত্রী লোকাল ট্রেন চালু করার সিদ্ধান্তে অনুমোদন দেবেন। তবে তেমনটা হলো না। স্বভাবতই আশাহত নিত্যযাত্রীরা।