কাজল-লিপস্টিক-সিঁদুরে মেয়েদের সাজগোজের মধ্যে কি বিপদ লুকিয়ে আছে দেখে নিন

11
কাজল-লিপস্টিক-সিঁদুরে মেয়েদের সাজগোজের মধ্যে কি বিপদ লুকিয়ে আছে দেখে নিন

মাথায় ছোট টিপ আর চোখে কাজল, ব্যাস এইটুকু হলেই যেন বাঙালি নারী পরিপূর্ণতা লাভ করে। সবসময় মেকাপ করে রাস্তায় বের হন না কেউই। কিন্তু ঠোঁটে লিপস্টিক আর চোখে কাজল, এই টুকু দিলেই লাবণ্যতা বৃদ্ধি পায় যে কোন মেয়ের। তবে এই সাজগোজ থেকেই আপনার যদি মারাত্মক বিপদ হয়, হ্যাঁ কথাটা অবাক লাগলেও একেবারে সত্যি। সাজগোজের আড়ালে লুকিয়ে রয়েছে একটি মারাত্মক বিপদ। চলুন দেরী না করে আজকে জেনে নেওয়া যাক সাজের মধ্যে লুকিয়ে রয়েছে কোন বিপদের হাতছানি।

আঠা লাগানো টিপ: আঠা লাগানো টিপ, যেগুলি বাজারে পাওয়া যায়, তার মধ্যে বেশিরভাগ নিকেল থাকে। সেই আঠা থেকে অ্যালার্জি হতে পারে যে কারোর। অনেক সময় টিপ ব্যবহার করলে কপালে সাদা দাগ হয়ে যায়। সেই দাগ বাড়তে বাড়তে সারা কপাল ছড়িয়ে যায়। কুমকুমের ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নেবার কথা বলেন বিশেষজ্ঞরা।

সিঁদুর: বাঙালি বিবাহিত নারীদের অন্যতম অঙ্গ হল সিঁদুর। প্রাচীনকালে হলুদ, চুনের জল এবং রঞ্জক মিশিয়ে সিঁদুর তৈরি করা হতো। তবে এখন বেশিরভাগ সিঁদুরে ব্যবহার করা হয় কেমিকাল। তাই সিঁদুর পরলে বেশিরভাগ চুল ওঠার সমস্যা দেখা যায় মেয়েদের। এছাড়াও খুশকির সমস্যা হতে পারে। তাই হারবাল সিঁদুর ব্যবহার করার কথা বলেন চিকিৎসকরা।

কাজল: কাজলের ব্যবহার আজ থেকে শুরু হয়নি। আজ থেকে বহু বছর আগে থেকে সাজ-পোশাক করার সময় মেয়েরা চোখে কাজল ব্যবহার করে থাকে। গুগোল সম্রাটেরা চোখে সুরমা ব্যবহার করতেন। আজও মুসলমানদের মধ্যে সুরমা ব্যবহার করার প্রচলন আছে। বাঙালিরা সেই সুরমা ব্যবহার না করে চোখে দেয় কাজল।

আমরা অনেক সময় শিশুদের ছোটবেলায় কাজল পরিয়ে রাখি। আমরা মনে করি যে কাজল লাগালে, যেকোনো কুনজরের প্রভাব এড়িয়ে যাওয়া সম্ভব। তখন চোখ শীতল রাখার জন্য কাজল এবং সুরমা দুটির মধ্যে মিশিয়ে দেওয়া হতো নানা জরিবুটি। আজকের মত কাজল অথবা সুরমাতে ভেজাল মেশানো থাকতো না তখন।

কাজল বানানোর জন্য সবথেকে গুরুত্বপূর্ণ উপাদান হলো সিসা। প্রাচীনকালে মনে করা হতো যে, চোখের জন্য সিসা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। কিন্তু এখন মনে করা হয় যে, সেই সিসা যদি ভেতরে ঢুকে যায়, তাহলে চোখের সমূহ ক্ষতি হয়ে যেতে পারে।

বাচ্চাদের যদি কাজল পড়াতে হয়, তাহলে সেটি বানিয়ে নেওয়া ভাল বাড়িতেই। বাজার চলতি যেকোনো কাজল ব্যবহার না করা উচিত। চোখের বাইরে আইলাইনার থেকে শুরু করে কাজল, সবকিছুই সৌন্দর্য বাড়ানোর জন্য ব্যবহার করলেও দিনের শেষে সেই মেকআপ তুলে তবেই ঘুমোতে যাওয়া উচিত। না হলে কখনো সেটি চোখের ভেতরে চলে গেলে ক্ষতি হয়ে যেতে পারে আপনার।