দেখে নিন এমন কিছু মিথ্যা যা আপনার জীবনকে সুন্দর এবং স্বাভাবিক করে তুলতে পারে

13
দেখে নিন এমন কিছু মিথ্যা যা আপনার জীবনকে সুন্দর এবং স্বাভাবিক করে তুলতে পারে

সম্পর্ক যে রকমই হোক না কেন, আমাদের জীবনে বেঁচে থাকার জন্য তাদের খুব প্রয়োজন। পৃথিবীতে জন্ম নেবার পর আমাদের নানা মানুষের সঙ্গে নানা সম্পর্ক গড়ে ওঠে। কখনো পরিবারের ভাইবোনদের সঙ্গে, কখনো পিতা-মাতার সঙ্গে, কখন আবার বন্ধুদের সঙ্গে, তাদের মধ্যে কিছু সম্পর্ক থেকে যায় চিরস্থায়ী, কিছু আবার তাড়াতাড়ি ভেঙে যায়। আবার কিছু সম্পর্ক ভেঙে যাওয়ার পরেওঅল্প মান-অভিমানের পর আবার জোড়া লেগে যায়। ভালোবাসা থাকলে কোন সম্পর্ক ভেঙে যায় না।

সংসার করতে গেলে শুধুমাত্র ভালোবাসা নয়, দরকার মিথ্যের আশ্রয় নেওয়া। টুকটাক মিথ্যা কথা বলে যদি সম্পর্ক সুন্দর এবং স্বাভাবিক থাকে, তাহলে মিথ্যা কথা বলাই যায়। আজকে দেখা যাবে এমন কিছু মিথ্যা, যা আপনার জীবনকে সুন্দর এবং স্বাভাবিক করে তুলতে পারে।

১) খারাপ হলেও বলুন রান্না দারুন হয়েছে- পাকা রাঁধুনীর কোন কোন সময় ভুল ভ্রান্তি হতে পারে। তাই আপনার সঙ্গিনী যদি আপনার জন্য রান্না করে নিয়ে আসে, তাহলে খারাপ লাগলেও তা ভালো বলতে শিখুন। তবে রোজকার ব্যাপার হলে অবশ্যই সত্যি কথা বলতে হবে। আর যদি রোজকার ব্যাপার না হয়, তাহলে টুকটাক মিথ্যা কথা বলা যায়।

২) সঙ্গী অথবা সঙ্গিনীর প্রশংসা: আপনার সঙ্গিনী অথবা সঙ্গী যদি স্থূলকায় হয়, তাহলে মনে রাখবেন আশেপাশের মানুষদের ও সমালোচনার হাত থেকে রক্ষা করতে হবে আপনাকেই। তার থেকে বড় ব্যাপার, কখনো ভুল করেও আপনি তার সমালোচনা করবেন না। শরীর নিয়ে সমালোচনা করলে তা অদূর ভবিষ্যতে ভুল বোঝাবুঝির সৃষ্টি হতে পারে।

৩) দারুন দেখতে লাগছে তোমাকে: একে অন্যের প্রশংসা সমস্ত সম্পর্কের মজবুত করে রাখে। তাই সঙ্গী অথবা সঙ্গিনীকে সবসময় প্রশংসা করতে শিখুন। কোন পোশাক-আশাক যদি তাকে নাও মানায়, তাও তার প্রশংসা করবেন।

৪) উপহার দিলে ভীষণ ভালো হয়েছে বলুন: সঙ্গী অথবা সঙ্গিনী কোন উপহার যদি দেয়, তাহলে অবশ্যই তার প্রশংসা করবেন। এক্ষেত্রে যেকোনো দাম্পত্য কলহ এড়িয়ে যাওয়া যায়। তাছাড়া উপহার দাতার মন খারাপ হয় না।

৫) ভালো না লাগলেও ছবি দেখুন: খুব অপছন্দের হলেও সঙ্গে অথবা সংগীনি কোন ছবি দেখতে চাইলে সেই ব্যাপারে আগ্রহ প্রকাশ করুন।

৬) পরিবারের প্রশংসা: আপনার সঙ্গী অথবা সঙ্গিনীর পরিবারের কাউকে আপনার অপছন্দ হতেই পারে। কিন্তু ঘরোয়া অনুষ্ঠানে গিয়ে সেখান থেকে ফিরে তাদের নিয়ে অপমান করবেন না। প্রতিদিন যাদের সঙ্গে দেখা হয়না, তাদের নিয়ে কোনো কলহ না বাড়ানোই ভালো।

৭) হক কথা: কখনো সঙ্গী অথবা সঙ্গিনীর সব কথা সঠিক হয় না। কিন্তু জায়গা বিশেষে তা এড়িয়ে চলাই ভালো।