লাল ফৌজকে ঠেকাতে এবার বিশাল সাবমেরিন বাহিনী তৈরির সিদ্ধান্ত নিল তাইওয়ান

7

এবার আগ্রাসী চীনকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য সাবমেরিন বাহিনী তৈরি করার পরিকল্পনা করলো তাইওয়ান। গতকাল মঙ্গলবার তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট সাই ইয়ং ওয়েন জানালেন এই কথা যেখানে সাহায্য করবে আমেরিকা। এটা অবশ্য নতুন কিছুই না কারণ চীন প্রথম থেকেই চেয়ে আসছে তাইওয়ানকে নিজেদের করে নিতে। কিন্তু যবে থেকে শি জিনপিং ক্ষমতায় এসেছে তবে থেকে এই চাওয়াটা যেন আরো বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। জিনপিং সরকার এখন বেশি আগ্রাসী হয়ে উঠেছে তাইওয়ান কে নিজেদের মানচিত্রে যোগ করার জন্য।

কিন্তু তাইওয়ান এখন আগের থেকে অনেকটাই সতর্ক হয়ে উঠেছে আর এই কারনেই তারা লাল ফৌজকে ঠেকাতে সামরিক দিক থেকে উন্নত হওয়ার চেষ্টা করছে আমেরিকার সাহায্য নিয়ে। এই দ্বীপ রাষ্ট্র টি এখন সামরিক দিক থেকে অনেকটাই আধুনিক হয়ে উঠেছে। তাইওয়ান দ্বীপ রাষ্ট্র হওয়ার কারণে এখন লাল ফৌজকে ঠেকাতে বিশাল সাবমেরিন বাহিনী তৈরির সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

তবে বর্তমান তাইওয়ানের কাছে যেসব সাবমেরিন রয়েছে সেগুলো একেবারে সেকেলে। সেগুলি দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়কার সাবমেরিন তাই এবার তাইওয়ান আমেরিকার সাহায্য নিয়ে অত্যাধুনিক সাবমেরিন বাহিনী তৈরীর পরিকল্পনা করছে। তাই এই নিয়ে তাইওয়ানের প্রেসিডেন্ট জানিয়েছে সার্বভৌমত্ব রক্ষার স্বার্থে কোনভাবেই আপস করা হবে না।

এখন সুযোগ বুঝে আমেরিকা তাইওয়ান কে বন্ধু বানিয়ে চীনের ওপর চাপ সৃষ্টি করছে। তাই আমেরিকা ইতিমধ্যে তাইওয়ানকে হারপুন মিসাইল দেওয়ার কথা জানিয়েছে। অনেকদিন আগেই ট্রাম্প সরকার একশটি হারপুন মিসাইল বিক্রির ক্ষেত্রে সীলমোহর দিয়েছে যার ফলে বেজিং এখন অনেকটাই চাপে।