সুপার মুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসাথে! এই বিরল দৃশ্যের সাক্ষী থাকবে পৃথিবীবাসী

20
সুপার মুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসাথে! এই বিরল দৃশ্যের সাক্ষী থাকবে পৃথিবীবাসী

আজ অর্থাত বুধবার চলতি বছরের প্রথম চন্দ্রগ্রহণ হলো। আজ চন্দ্রগ্রহণ দেখতে পাওয়া যাবে। সঙ্গে আরেকটি মহাজাগতিক দৃশ্য আপনারা দেখতে পাবেন। পৃথিবীর সবথেকে কাছে চলে আসায় চাঁদ হবে চলতি বছরের সবথেকে নিকটস্থ এবং সর্ব বৃহৎ পূর্ণচন্দ্র।এই বিরল দৃশ্য সাক্ষী থাকবে পৃথিবীবাসী। প্রায় ছয় বছরে সুপার মুন এবং পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ একসাথে হয়নি।

সুপারমুন কি?

আমাদের পৃথিবীর চারপাশে যে চাঁদ বৃত্তাকারে পাক খায় তা কিন্তু পুরোপুরি গোলাকার নয়। অনেকটা উপবৃত্তাকার। পৃথিবীর চারপাশে ঘুরতে ঘুরতে চাঁদ যখন পৃথিবীর একেবারে কাছে চলে আসে, তখন তাকে বলা হয় প্যারিজি। পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব কমে গিয়ে দাঁড়ায় ৩৬০,০০০ কিমি। অন্যদিকে আবার যখন পৃথিবীর সবথেকে দূরে চলে যায় তখন পৃথিবী থেকে চাঁদের দূরত্ব হয় ৪০৫,০০০ কিমি। তাকে বলা হয় অ্যাপোজি।

এইভাবে চাঁদের কক্ষপথে ঘুরতে ঘুরতে চাঁদ যখন পৃথিবীর খুব কাছে চলে আসে তখন চাঁদকে যে শুধুমাত্র উজ্জ্বল দেখায় তা নয় চাঁদকে তার আসল রূপের থেকে অনেকটা বড় দেখায়। ১৯৭৯ সালে জ্যোতিষ রিচার্জ নোলে সুপার মুন কথাটির প্রচলন করেছিলেন। একটি বছরে দুটি থেকে চারটি সুপার মুন আমরা দেখতে পাই। এর আগে এপ্রিল মাসে আরো একটি পূর্ণিমা ছিল, তবে আজ যে পূর্ণ চন্দ্রকে দেখতে পাওয়া যাবে তা পৃথিবীর সঙ্গে প্রায় ০.০৪ শতাংশের কাছাকাছি থাকবে।

আজ দুটি মহাজাগতিক ঘটনা একসাথে ঘুরতে চলেছে। একইসঙ্গে হবে পূর্ণ চন্দ্রগ্রহণ। পূর্ণ চন্দ্র গ্রহণের কারণে, যেহেতু পৃথিবী চাঁদে সূর্যের আলো পৌঁছাতে বাধা দেয়, পৃথিবীর বায়ুমণ্ডল থেকে যেহেতু সূর্যের আলো পরিশ্রুত হয় তাই চাঁদকে গোলাপি আভা দেখা যায়।

বুধবার সকালে কেন্দ্রীয় দিবালোকের সময় অর্থাৎ সকাল ৬ টা ১৩ মিনিটে এই সুপার মুন দেখতে পাওয়া যাবে। গভীর রাতে অথবা ভোরের দিকে সবথেকে ভালো দেখতে পাওয়া যাবে এটি।

নাসা থেকে জানানো হয়েছে যে, আজ অর্থাত বুধবার চন্দ্রগ্রহণ প্রত্যক্ষ করা খুব একটা সহজ কাজ হবে না। কিছু কিছু জায়গায় আংশিক চন্দ্রগ্রহণ দেখতে পাওয়া যাবে। ভারত-নেপাল পশ্চিম মঙ্গোলিয়া এবং রাশিয়ার কিছু জায়গা থেকে চাঁদ ওঠার ঠিক পরে আংশিক চন্দ্রগ্রহণ লক্ষ্য করা যেতে পারে।