অদ্ভুত ঘড়ি! নাই বারো’টার কাটা! জানুন কোথায় আছে এই ঘড়ি

15
অদ্ভুত ঘড়ি! নাই বারো'টার কাটা! জানুন কোথায় আছে এই ঘড়ি

বিষয়টা অবাক করার মতনই সুইজারল্যান্ডে উত্তর পশ্চিম প্রান্তে একটি শহর আছে। শহরটি পর্যটকদের কাছে বিশেষ বিশেষ কারণে খুব আকর্ষণীয় হয়ে উঠেছে। বেড়াতে এসে পর্যটকেরা বেশ কিছুক্ষণের জন্য আটকে যান কেন্দ্রস্থলে থাকা ঘড়ির দিকে তাকিয়ে। এখানে রয়েছে একটি অদ্ভুত ঘটনা। আর দশটি ঘড়ির মতো এই ঘড়িটি স্বাভাবিক নয়। পৃথিবীতে সব ঘড়ি তে যেমন বারোটি কাটা থাকে। কিন্তু এই ঘড়িতে বারো’র কাটা টি নেই। রয়েছে এগারো’র কাটা। তার মানে কি এই ঘড়িতে 12 টা বাজে না?

উত্তর শুনলে আপনারা সবাই অবাক হয়ে যেতে পারেন। বলা যায় এই শহরে রয়েছে এগারটি গির্জা, এগারোটি জাদুঘর, এগারোটি ঝরনা সহ আরো এমন কিছু যেই কারণে ১১ সংখ্যাকে এই শহর বেছে নিয়েছে। শহরের বেশ অনেক কিছুতেই রয়েছে ১১ ছাপ। এগারো শতাব্দীর শেষের দিকে এই শহরে ইলড নামে এক জার্মান আসেন। যিনি এই নগর প্রতিষ্ঠার জন্য অনেক পরিশ্রম করেছিলেন।

এখানেই শেষ নয় ধরা যায় ১২১৫ সালে যখন এই শহরে কাউন্সিলের নির্বাচন হয় তখন ১১ জনকে নির্বাচন করা হয়েছিল। ওই সময় ১১ জনকে শহরের রক্ষাকর্তা হিসেবে নিযুক্ত করা হয়েছিল। এরপর ১৫ শতকের দিকে যখন শহরে গির্জা নির্মাণ হয়েছিল তখন সেই গির্জায় এগারটি দরজা, এগারটি জানলা, এগারোটি ঘণ্টা, এবং এগারো রকমে পাথর ব্যবহার করা হয়েছিল। তাই এই শহরবাসীর মনের ১১ সংখ্যাটি বিপুলভাবে গেঁথে গিয়েছে। তাই ১১ এর ইতিহাস মিশে রয়েছে এই শহরে।