ফের দলে ফেরার জন্য আকুতি মিনতি শুরু করে দিলেন সোনালী গুহ

10
ফের দলে ফেরার জন্য আকুতি মিনতি শুরু করে দিলেন সোনালী গুহ

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের পূর্বেই দলত্যাগী হয়েছিলেন যারা, তারা এবার ঘরে ফেরার পথে! নির্বাচন শুরু হওয়ার পর এক মুহূর্তে পুরনো দল ত্যাগ করে বিজেপি শিবিরে যোগ দেওয়ার জন্য একটা হিড়িক পড়ে গিয়েছিল রাজনৈতিক মহলে। বিশেষত তৃণমূল শাসক শিবির থেকে দলে দলে নেতা-নেত্রীরা গেরুয়া পতাকা হাতে তুলে নিচ্ছিলেন। তবে বিজেপি পরাজিত হতেই ভুল ভাঙলো তাদের! এখন দলে ফিরতে না পেরে রীতিমতো “শ্বাসকষ্ট” শুরু হয়ে গিয়েছে দলত্যাগীদের।

দলত্যাগীদের এই ভিড়ে নাম লিখিয়েছিলেন সোনালী গুহ। একুশের নির্বাচনের প্রস্তুতি শুরু হতে না হতেই দলের প্রতি অভিমান বশতই হোক কিংবা “দলে থেকে কাজ করতে পারছিনা”র কারনেই হোক, তৃণমূল দলত্যাগীদের সংখ্যা বাড়ছিল। এই দলে ছিলেন তৃণমূল নেত্রী সোনালী গুহ। দিদির অত্যন্ত স্নেহধন্যা সোনালী নির্বাচনের আগে দিদিকে ত্যাগ করে গেরুয়া শিবিরে ভিড়েছিলেন।

একুশের ফল প্রকাশের মাসখানেকের মধ্যেই সোনালী নিজের ভুল বুঝতে পারলেন। শনিবার সোশ্যাল সাইটে দিদিকে একটি লম্বা-চওড়া চিঠি লিখে ঘরে ফেরার জন্য আকুতি করতে শোনা গেল সোনালী গুহকে। সেখানে সোনালী লিখেছেন, দলের প্রতি চরম অভিমানের কারণেই তিনি একটি ভুল সিদ্ধান্ত নিয়ে নিয়েছেন। তবে এখন তিনি আর বিজেপি শিবিরে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছেন না!

সোনালী গুহ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে উদ্দেশ্য করে লিখেছেন, “মাছ যেমন জল ছাড়া বাঁচে না, আমিও তেমনি আপনাকে ছাড়া বাঁচতে পারছিনা”! তিনি এও লিখেছেন যে দলত্যাগীদের মধ্যে অনেকেই নাকি আবার দলে ফিরতে চাইছেন। এখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই তাকে ক্ষমা করে দিয়ে পুনরায় দলে সামিল করবেন কিনা, তা সময় বলবে। উল্লেখ্য, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অবশ্য এর আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন যারা দল ছেড়ে গেছেন তাদের জন্য দলের দরজা খোলাই আছে।