উত্তর কোরিয়ার মসনদে বসতে পারেন বোন কিম ইও, যায় যায় অবস্থা কিমের

61
উত্তর কোরিয়ার মসনদে বসতে পারেন বোন কিম ইও, যায় যায় অবস্থা কিমের

আমরা কি কখনও ভেবে দেখেছি কিম জং উনের পর তার সেই আসনে কে বসতে চলেছে। কারণ কিম কেমন ধরনের মানুষ তা সারা বিশ্বের কাছে অজানা নয়। সবাই ভালো মতোই জানে। এবার পরবর্তী উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রপ্রধানের সিঙ্ঘাসনে বসা নিয়ে একটা প্রশ্ন উঠেছে। কারণ কিম তার স্ত্রী সঙ্গীদের কোনোভাবেই বিশ্বাস করেন না, এমনকি সে তার পরিবারের মানুষকেও কোনোভাবেই বিশ্বাস করে না।

তাই শোনা যাচ্ছে পরবর্তী সিঙ্ঘাসনে বসতে পারেন তার নিজের বোন কিম ইও জং। কিমের বোন কিম ইওর ভালো প্রভাব আছে কমিউনিস্ট পার্টি, সেনাবাহিনীতে। এর জন্য কিমের নাকি তার বোনের ওপরেই একমাত্র বিশ্বাস। এদিকে কিছুদিন আগেই মার্কিন সংবাদ মাধ্যম সূত্রে জানা গিয়েছিল কিম এখন প্রায় অনেকটাই অসুস্থ। এ নিয়ে অবশ্য পিয়ং ইয়ং মুখ খোলে নি। তবে কিছু গুপ্তচর সংস্থা জাপানের ও দক্ষিণ কোরিয়ার, তারা এই খবর বের করেছে।

শুধু কিম না, দক্ষিণ কোরিয়ার অনেকেই বলেছে কিমের পরে সেই আসনে কিমের বোন কিম ইও রোপরে আস্থা করাই যায়। কারণ তার বুদ্ধিমত্তা , পরিচালন ক্ষমতা, ব্যাক্তিত্ব সব মিলিয়ে দেখা গেলে, তার ওপরে আস্থা করাই যায়। এদিকে দক্ষিণ কোরিয়ার প্রেসিডেন্টের সাথেও নরমে গরমে কথা চলতে থাকে ইওর। তাই কিমের তার বোনের ওপরে দারুণ আস্থা। এবার আসা যাক কিমের শারিরীক পরিস্থিতি নিয়ে। এতো কথা ওঠার কারণ একটাই কিমের শারিরীক পরস্থিতি।

তার ওপরে নির্ভর করেই বোনের সিঙ্ঘাসনে বসার কথা উঠে এসেছে। শোনা যাচ্ছিল কিম নাকি বেজায় অসুস্থ। তার নাকি হার্ট সার্জারিও হয়েছে।এটা অনেকে গুজব বলেই মনে করছে, কারণ এমন খবর নতুন কিছু নয়, এর আগেও কিম ও কিমের বাবার সম্পর্কে অনেক কথাই উঠে এসেছে। তাদের শারিরীক অবস্থা খুবই খারাপ, তারা হয়ত বাচবে না, হয়ত সেড়ে উঠতে অনেক সময় লাগবে। কিন্তু শেষে গিয়ে দেখা গেছে এসব গুজব। তাই এখন অনেকেই বিশ্বাস করতেই চাইছে না। এই সব কথা।

তবে এদিকে অনেকেই কিমের সুস্থ হওয়ার কামনা করেছেন। তার মধ্যে ট্রাম্প অন্যতম। তিনি জানিয়েছেন , আমি কিমের দীর্ঘায়ু কামনা করি। আমাদের সাথে বন্ধুর সম্পর্ক কিমের। কিমের অসুস্থার খবর শুনে একটু অবাক হয়ে ছিলাম, কারণ এটা অনেকটাই উদ্বেগজনক ব্যাপার। শেষে তিনি এটাও বলেছেন এই খবর ভুল না সঠিক তা জানি না। তবে তিনি যদি অসুস্থ হয়ে থাকেন, তাহলে তিনি যেনো খুব শীঘ্রই সুস্থ হয়ে ওঠেন, এটাই কামনা করব।