প্রধানমন্ত্রীর পায়ে ধরা প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন শুভেন্দু অধিকারী

16
প্রধানমন্ত্রীর পায়ে ধরা প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন শুভেন্দু অধিকারী

ঘূর্ণিঝড় ইয়াসের পর সেই ঘূর্ণিঝড় সম্পর্কে আলোচনা করার উদ্দেশ্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বে একটি বৈঠকের আয়োজন করে কেন্দ্র। সেই বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেও উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছিল। তবে মুখ্যমন্ত্রী বৈঠকে উপস্থিত হননি বলেই দাবি করছেন কেন্দ্রের শীর্ষ নেতারা। এই নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতিতে বিস্তর জলঘোলা চলছে। কেন্দ্র এবং রাজ্য কার্যত একে অপরকে দোষারোপ করতেই ব্যস্ত।

বিরোধীদের থেকে প্রবলভাবে সমালোচিত হয়ে শেষমেষ শনিবার দুপুরে একটি সাংবাদিক বৈঠকে মুখ্যমন্ত্রী তার তরফের যুক্তি এবং অভিযোগ সকলের সামনে তুলে ধরেন। তার বক্তব্য অনুযায়ী, কেন্দ্রীয় সরকার বারংবার তাকে অপমান করছে। আসলে একুশের নির্বাচনে হেরে যাওয়ার রাগ থেকেই কেন্দ্র মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে এমন দুর্ব্যবহার করছে বলে দাবি করেন মুখ্যমন্ত্রী। এই নিয়ে বিতর্কের পারদ যখন শীর্ষে তখন মুখ্যমন্ত্রীর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন বঙ্গ বিজেপির হেভিওয়েট নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

ঘূর্ণিঝড় বিতর্কে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা কিছু বলেছেন তার বিরোধিতা করে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, বৈঠকে উপস্থিত না থাকা প্রসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বলেছেন তা অত্যন্ত দুঃখজনক এবং লজ্জাজনকও বটে। মুখ্যমন্ত্রীর প্রতি শুভেন্দু অধিকারীর পরামর্শ, “আপনি সংবিধান মেনে চলুন”।

প্রসঙ্গত মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এদিন সাংবাদিক বৈঠকে বলেন, “বাংলার ভালোর জন্য আমি প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রীর পায়েও ধরতে পারি। তবে আমাকে দয়াকরে অপমান করবেন না।” মুখ্যমন্ত্রীর এই বক্তব্যের পরিপ্রেক্ষিতে শুভেন্দু বলেন, “প্রধানমন্ত্রীর পায়ে পড়ার কোনো দরকার নেই। আপনি দয়া করে সংবিধান মেনে চলুন, তাহলেই হলো।”