শোভন দা একটুও ভালো নেই! জেলে দেখা করতে যাবার সময় কান্নায় ভেঙে পড়লেন বান্ধবী বৈশাখী

23
শোভন দা একটুও ভালো নেই! জেলে দেখা করতে যাবার সময় কান্নায় ভেঙে পড়লেন বান্ধবী বৈশাখী

বিধানসভা নির্বাচনে যতই বিপুল ভোটে জয়যুক্ত হোক না কেন তৃণমূল, বিতর্ক যেন তার পিছু ছাড়ছে না কিছুতেই। কিছুদিন আগে বিজেপি বিধায়ক রা দাবি করেছিলেন যে ক্রমাগত বিজেপি কর্মীদের ওপর অত্যাচার চালিয়ে যাচ্ছে তৃণমূল। সম্প্রতি মাননীয়া রাজ্যপাল পশ্চিমবঙ্গ পরিদর্শন করতে এসেও জানিয়েছেন সে কথা। তার মধ্যে আরও একবার বিতর্কে জড়িয়ে গেল তৃণমূলের নাম।

নারদ মামলায় সম্প্রতি গ্রেফতার করা হল তিন বিধায়ক সহ কলকাতার প্রাক্তন মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায় কে। সোমবার দীর্ঘ  জেরার পর অবশেষে জেল হেফাজত হল শোভন চট্টোপাধ্যায়, ফিরহাদ হাকিম এবং সুব্রত মুখোপাধ্যায় ও মদন মিত্রের। তার মধ্যে জেলে থাকাকালীন ভোররাতে অসুস্থ হয়ে পড়ার জন্য এসএসকেএম হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং মদন মিত্র কে।

মঙ্গলবার সংবাদ মাধ্যমকে শোভন চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন যে, শোভন দা একটুও ভালো নেই। সত্যি খুব চিন্তা হচ্ছে। শোভন চট্টোপাধ্যায়ের শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে বৈশাখী জানিয়েছেন যে, ওর শ্বাস কষ্ট হচ্ছে। এখন অক্সিজেন সাপোর্টে রয়েছেন। কিন্তু এখনো পর্যন্ত কোনো জল অথবা খাবার দেওয়া হয়নি।

জেলে ইনসুলিন নিতে পারিনি বলে শারীরিক অবস্থা আরো বেশি ক্ষতিকর হয়েছে। ভোরবেলা যখন তাকে হাসপাতালে আনা হয় তখন চা বিস্কুট দিয়ে ঘুমের ইনজেকশন দেওয়া হয়েছিল। আজ আমি দেখা করতে যাব ওনাদের সঙ্গে।

বৈশাখী আরো বলেন যে, মহা ক্ষমতাবান এজেন্সির সঙ্গে শোভন বাবুর মত সাধারন মানুষ একেবারে পেরে উঠবে না। জীবিত অবস্থায় যেন তাকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়, এটাই শুধু প্রার্থনা আমার। শোভন বাবুর সঙ্গে জেলে দেখা করতে যাবার সময় কান্নায় ভেঙে পড়েন তার বান্ধবী বৈশাখী দেবী।

সিবিআইয়ের পদক্ষেপে বিরোধিতা করে বৈশাখী দেবী বলেন যে, শোভনবাবু এখন কোন পদে নেই। তাকে শুধু শুধু এর মধ্যে ফাঁসানো হচ্ছে। সিবিআই এর মত সংস্থাকে গণতন্ত্রের রক্ষাকর্তা বলা হয় কিন্তু আমি তো এখন তা মনে করছি না।