সাকিবের ক্ষমা চাওয়ার অর্থ হিন্দু ধর্মের অপমান, ক্ষোভ প্রকাশ করে টুইট করলেন তসলিমা নাসরিন

6
সাকিবের ক্ষমা চাওয়ার অর্থ হিন্দু ধর্মের অপমান, ক্ষোভ প্রকাশ করে টুইট করলেন তসলিমা নাসরিন

বাংলাদেশের ক্রিকেট জগতের ক্রিকেটার সাকিব আল হাসান কালী পূজার সময় ভারত সফরে এসেছিলেন এবং সেই সময় তাকে কলকাতায় একটি মন্দির উদ্বোধনে জন্য নিমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল। নিমন্ত্রণ রক্ষার জন্য তিনি কলকাতার সেই মন্দিরটিতে আসেন এবং সেখানে প্রদীপ জ্বালিয়ে মন্দির উদ্বোধন করেন। এই ঘটনার পরেই বাংলাদেশ সাকিব আল হাসানের বিরুদ্ধে ওঠে বিতর্কে ঝড়।

বাংলাদেশের যে সমস্ত মৌলবাদীরা রয়েছে তারা সরাসরি সাকিব আল হাসানকে খুনের হুমকি দেন এবং মৃত্যুর ভয়ে সাকিব আল হাসান এই সমস্ত কাজ কে ভুলবশত হয়ে যাওয়া কাজ বলে নতিস্বীকার করেন।

তিনি খুনের হুমকি পাওয়ার পর নতিস্বীকার করে বলেন যে,” আমি কোন রকম কোন মন্দির উদ্বোধন করিনি, এবং একজন মুসলমান হয়ে এই ধরনের কাজ কখনই আমার পক্ষে করা সম্ভব না আমার ওই মন্দিরে যাওয়াটাই সবচেয়ে বড় ভুল হয়ে গেছে”।

নিজের ইউটিউব চ্যানেলে তিনি এই রকমের নতিস্বীকার করেন এবং সকল বাংলাদেশী মৌলবাদীদের কাছে তিনি ক্ষমা চেয়ে নেন এইরকম একটি ভুল করার জন্য।

এই ক্ষমা চাওয়ার পরেই বাংলাদেশের এক লেখিকা নাসরিন করে বলেন যে,” এইরকম ভাবে ক্ষমা চাওয়ার কোনো যুক্তি নেই।এইরকম ভাবে ক্ষমা চাওয়ার অর্থ সাকিব হিন্দু ধর্মের অপমান করেছেন”।

তিনি আরও বলেন যে, “ক্ষমা চাওয়ার ফলে ইসলামী মৌলবাদীরা আরও বেশি সাহস পেয়ে যাবে, এর ফলে কোনো মুসলমান যদি কোন হিন্দুদের প্রতি সহানুভূতি দেখায় কোন মন্ডপে প্রবেশ করেন তাহলে তাকে হত্যা করতেও পিছপা হবেন না”।

কালী পুজোয় পরেশ পাল, তৃণমূলের এক নেতার বাড়িতে সাকিব এসেছিলেন পুজো উদ্বোধন করতে, এবং এই ঘটনা জুড়েই রীতিমতো বাংলাদেশের তোলপাড় হয়ে যায়। মহসিন তালুকদার নামে একজন সাকিবকে এই কাজ করার জন্য লাইভ এসে তাকে দা দিয়ে কুপিয়ে দেওয়ার হুমকি দেয়।

পরিস্থিতি অনেকটা ভয়ঙ্কর অবস্থায় পৌঁছালে পরে পুলিশে বিষয়টিকে দেখে এবং সাকিবকে হত্যার হুমকি দেওয়ার জন্য পুলিশ সেই মহসিন তালুকদারকে গ্রেফতার করে।