পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত হলেন বাংলার সাত কৃতি ব্যাক্তি

4
পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত হলেন বাংলার সাত কৃতি ব্যাক্তি

বাংলার গৌরবের মুকুটে নতুন পালক সংযোজিত হলো। সম্প্রতি বাংলার সাত জন কৃতিকে পদ্মশ্রী পুরস্কারে ভূষিত করা হয়েছে। চলতি বছরে ক্রীড়া, শিল্প, সাহিত্য ও সমাজসেবা-সহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে পদ্মশ্রী পুরস্কার পেয়েছে বাংলা। এছাড়াও কিংবদন্তি দক্ষিণী সংগীত শিল্পী এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম মরণোত্তর পদ্মবিভূষণ পুরস্কারে ভূষিত হয়েছেন। দেশ-বিদেশের আরও অনেক বিশিষ্ট কৃতিকে বিভিন্ন ক্ষেত্রে তাদের অবদানের জন্য পুরস্কার দেওয়া হয়েছে।

বাংলায় ক্রীড়াক্ষেত্রে পদ্মশ্রী পুরস্কার পেয়েছেন বিশিষ্ট টেবল টেনিস তারকা মৌমা দাস। সাহিত্য ও শিক্ষাক্ষেত্র থেকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত হয়েছেন ধর্মনারায়ন বর্মা, সুজিত চট্টোপাধ্যায়, জগদীশ চন্দ্র হালদার। শিল্পকলা বিভাগে নিজের অবদান রাখার জন্য বীরেন কুমার বসাক এবং নারায়ণ দেবনাথ পদ্মশ্রী পুরস্কার পেয়েছেন। সমাজ কল্যাণের ক্ষেত্রে বিশেষ অবদান রাখার জন্য গুরুমা কালী সোরেণকে পদ্মশ্রী সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে।

প্রায় পাঁচ দশকেরও বেশি সময় ধরে সঙ্গীত জগতের সঙ্গে যুক্ত ছিলেন এস পি বালাসুব্রহ্মণ্যম। হিন্দি, তামিল, তেলুগু, কন্নড় ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে তিনি ছিলেন এক জনপ্রিয় গায়ক। বলিউডের “ক্রিমিনাল”, “ম্যায়নে প্যায়ার কিয়া”, “হাম আপকে হ্যায় কৌন”, “রোজা”-র মতো জনপ্রিয় সিনেমাগুলিতে প্লেব্যাক সিঙ্গার ছিলেন তিনি। তার কন্ঠ সিনে প্রেমীদের মুগ্ধ করেছে। গানের পাশাপাশি একাধিক ছবিতে অভিনয়ও করেছেন তিনি। তার অভিনয়ও দর্শকদের মাঝে বেশ প্রশংসিত হয়েছে। মরণোত্তর পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত করা হয়েছে তাকে।

এছাড়াও এ বছর আট জন বিদেশিকে সম্মানিত করা হয়েছে। জাপানের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী শিনজো আবে পাবলিক অ্যাফেয়ার্সের জন্য পদ্মবিভূষণ’ পেয়েছেন। কর্ণাটকের ডা. বেল্লে মোনাপ্পা হেগড়েও পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন। ভারতীয় বংশোদ্ভূত মার্কিন নাগরিক নারিন্দর সিং কাপানিকেও মরণোত্তর পদ্মবিভূষণ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়াও মৌলানা ওয়াহিদুদ্দিন খান আধ্যাত্মবাদের জন্য, বি. বি. লাল নৃতত্ত্ববিদ্যায়, ওড়িশার প্রখ্যাত শিল্পী সূদর্শন সাহু শিল্পক্ষেত্রে পদ্মবিভূষণ সম্মানে ভূষিত হয়েছেন।