দেখুন কীভাবে মাতৃদুগ্ধ বাড়িতেই সংরক্ষণ করে রাখবেন

13
দেখুন কীভাবে মাতৃদুগ্ধ বাড়িতেই সংরক্ষণ করে রাখবেন

মানুষের জীবনে মায়ের গুরুত্ব অপরিসীম, সে ছোট বাচ্চা থেকে বয়স বাড়ার সাথে সাথে গুরুত্ব একই থাকে। তবে একদম সদ্যোজাত শিশুর মাকে ছাড়া চলেই না বলতে গেলে, জন্মানোর পর এই শিশু মায়ের স্তন্যপান করেই বড় হতে থাকে।

প্রথম ছয় মাস বয়স পর্যন্ত মাতৃদুগ্ধ ই একমাত্র খাদ্য, যা বেড়ে ওঠার জন্য যা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। সন্তান জন্মের এক ঘন্টা পর থেকে মায়ের শরীরে যে হলুদ দুধ বা কলোস্ট্রাম নিঃসরণ হয়, তা শিশুর শরীরের জন্য খুবই উপকারী। এই হলুদ দুধ পান করাতে শিশুর শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা গড়ে ওঠে, ডাক্তারদের মতে শিশুর ছয় মাস পর্যন্ত মায়ের দুগ্ধ পান করলে, তার শরীরে ১৪ গুন বেশি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বেড়ে ওঠে। এখন উন্নত পদ্ধতিতে মাতৃদুগ্ধ ব্যাংক গড়ে উঠেছে, যেখানে অনাথ শিশুরাও মায়ের পুষ্টি পেতে পারে।

তবে এই মাতৃদুগ্ধ বিভিন্নভাবে সংরক্ষণ করা যায়, বাড়িতেই পাম্পিং মেশিনের দ্বারা ব্রেস্ট মিল্ক বোতলে রেখে প্রথম তিন থেকে ছয় মাস ফ্রিজে সংরক্ষণ করা যায়, অবশ্যই তা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় থাকতে হবে। ছমাসের পরে তা ডিপ ফ্রিজে রাখা দরকার। তবে এই দুধ ফ্রিজের একদম ভেতরের দিকে রাখা উচিত, কারণ বারবার ফ্রিজের দরজা খুললে এবং ঐ বোতলে হাত দিলে তাতে জীবাণু প্রবেশ করে যেতে পারে।

তবে এই দুধ ফ্রিজে চার দিন অব্দি সংরক্ষণ করা যেতে পারে। তবে সদ্য পাম্প করা দুধ ঘরের তাপমাত্রা চার ঘন্টা পর্যন্ত রাখা যায়। এর বেশি না রাখাই ভালো, কোন তবে বিভিন্ন ট্রাভেল করার সময় তা কুলার ব্যাগের ভেতর নিয়ে জার্নি করতে পারে। তখন সেই দুধ মাত্র চব্বিশ ঘন্টা পর্যন্ত ঠিক থাকে। তবে ফ্রিজ থেকে বার করার পরও কিছু পদ্ধতি আছে যা অবলম্বন করা দরকার, যেমন ফ্রিজ থেকে দুধ বার করার পরে ঘরের স্বাভাবিক তাপমাত্রায় দুই ঘন্টা পর্যন্ত তাজা থাকে। এর বেশি রাখা সম্ভব নয়, তবে একটি বোতল বের করে বাচ্চাকে দুধ খাইয়ে যদি কিছুটা বাঁচে তা ফের ফ্রিজের না দেয়াই ভালো, কিছুক্ষণ পরে আবার সেই দুটি বাচ্চাকে খাওয়ানো যেতে পারে।

বোতল খোলা থেকে তা দু’ঘণ্টার মধ্যে আবার বাচ্চাকে খাওয়ানো যেতে পারে। তবে এই দুধ সরাসরি মাইক্রোওভেনে বা গ্যাসে গরম না করার পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। এই সমস্ত পদ্ধতি অবলম্বন করে চললে, খুব সহজেই বাড়িতেও ব্রেস্ট মিল্ক সংরক্ষণ করা সম্ভব হয়ে উঠবে, বিশেষত যারা চাকুরীজীবি মহিলা তাদের জন্য এই সমস্ত কিছু খুবই উপকার রে আসতে পারবে।