নিয়ানডার্থাল গোষ্ঠীর সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা

9
নিয়ানডার্থাল গোষ্ঠীর সন্ধান পেলেন বিজ্ঞানীরা

ইতিহাসের পাতায় আমরা নানা জাতি উপজাতির কথা পড়েছি। পড়েছি অনেক অনেক বছর আগে মনুষ্য প্রজাতি কেমন ছিল বা কিভাবে বিবর্তনের মাধ্যমে আদিম মানুষ এতটা উন্নত হয়ে উঠলো। কিন্তু এই নিয়ে আরো অনেক গবেষণা বিজ্ঞানীরা চালিয়ে যাচ্ছিলেন। আর সেই গবেষণা অনুযায়ী জানা যাচ্ছে যে, ইউরোপ, দক্ষিণ-পশ্চিম এবং মধ্য এশিয়ার মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় নিয়ানডার্থাল বলে এক উপজাতি প্রায় চল্লিশ থেকে চারশো বছর আগে উপস্থিত ছিল।

ম্যাক্স প্লাঙ্ক ইনস্টিটিউট ফর এভেলিউসানারি এনথ্রোপোলজি কয়েক জন আন্তর্জাতিক স্তরের গবেষকদের নিয়ে একটি দল গঠন করে অনেকদিন ধরে এই উপজাতিদের নিয়ে রিসার্চ করা হয়। আর সেই রিসার্চ মারফত জানতে পারা যায় যে, নিয়ানডার্থাল বলে একটি জনগোষ্ঠী সাইবেরিয়ার বিভিন্ন গুহাগুলোতে ৫৪ হাজার বছর আগে বসবাস করত। আর রাশিয়ার দুটি গুহা থেকে সেই গোষ্ঠীর মানুষের হারের টুকরো পান বিজ্ঞানীরা। আর সেই থেকে তারা প্রায় ১৩ জন নিয়ানডার্থাল গোষ্ঠীর সন্ধান পান। এবং ডিএনএ টেস্ট করে তারা বোঝেন এই গোষ্ঠীর একজন লোকের সাথে আরেক লোকের সম্পর্ক ছিল বলে জানতে পারে তারা। দীর্ঘ ১৪ বছর ধরে গবেষণা করে ২০২২-এর নোবেলজয়ী সাভান্তে পাবো নিয়ানডার্থাল ডিএনএ বিষয় নিয়ে এই সমস্ত তথ্যই বের করেছেন তাঁরা।

এছাড়াও চ্যাগিরস্কায়া এবং ওকল্যাডনিকোভ অঞ্চলে নিয়ানডার্থাল জনগোষ্ঠীর মানুষ ঘোড়া, বাইসন, বুনো ছাগল, এই সমস্ত শিকার করত বলে মনে করেছেন প্রত্নতাত্ত্বিকরা। এই পশুগুলি মূলত নদী পার ধরে ওই সমস্ত অঞ্চলে শিকার বা আশ্রয়ের খোঁজে ঢুকে পড়ত বলেও জানিয়েছেন তারা।
আর এই নিয়ে লৌরিটজ স্কোভ বলেন ‘এই বিষয়টা সত্যি খুব মজার, যে এরাও একই সময় বসবাস করছিল। সেই কারণে এই প্রথমবার আমরা প্রজাননশাস্ত্রের সাহায্য নিয়ে নিয়ানডার্থাল জনগোষ্ঠীর সামাজিক গঠন সম্পর্কে একটা ধারণা তৈরি করতে পারব।’