রেলের টিকিটের উপর হাতের কারুকার্য ফুটিয়ে তুলে গিনিস বুকে নাম তোলার অপেক্ষায় সৌরভ

5
রেলের টিকিটের উপর হাতের কারুকার্য ফুটিয়ে তুলে গিনিস বুকে নাম তোলার অপেক্ষায় সৌরভ

শিল্পী সত্তা তার রন্ধে বিরাজ করছে। শিল্পের কোনো নির্দিষ্ট ক্ষেত্র-পরিসর থাকে না, তা প্রমাণ করে দিলেন সিঙ্গুরের এই ২৭ বছর বয়সী যুবক সৌরভ আদক। শিক্ষাগত যোগ্যতার নিরিখে তিনি একজন বিটেক ইঞ্জিনিয়ার। তবে অংকের প্রতি তেমন টান ছিল না তার। তাই তিনবারের প্রচেষ্টায় অংকে পাশ করেছেন তিনি। তাতে অবশ্য তার কোনো দ্বিধা নেই। কারণ তার টান তো বরাবর শিল্প জগতের প্রতিই ছিল!

ব্যর্থতাকেই সফলতার চাবিকাঠি হিসেবে ব্যবহার করেছেন সৌরভ। তাই তো প্রতিবার মার্কশিটের জেরক্স করিয়ে তার উপর নিজের শিল্পীসত্তা ফুটিয়ে তুলেছেন তিনি। তার জীবনের এখন একটাই লক্ষ্য, রেলের টিকিটের উপর নিজের শিল্পকর্ম ফুটিয়ে তুলে গিনেস ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নিজের নাম অন্তর্ভুক্ত করা! এই স্বপ্ন ঘিরেই অবিরাম পরিশ্রম করে চলেছেন সৌরভ। সিঙ্গুরের নসিবপুরের বাসিন্দা সৌরভের ঝুলিতে কিন্তু ইতিমধ্যেই বেশ কিছু পুরস্কার জুটে গিয়েছে।

২০১৮ ও ২০১৯ সালে নিউজ বেঙ্গল এক্সিলেন্সি অ্যাওয়ার্ড পেয়েছেন সৌরভ। ২০২০-তেও ইন্ডিয়া বুক অফ রেকর্ডসে নিজের নাম তুলেছেন তিনি। ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করার পর তাকে চাকরির প্রচেষ্টায় হন্যে হয়ে ঘুরতে হয়েছিল একসময়। কিন্তু বহু কাঙ্ক্ষিত সেই চাকরি তিনি পাননি। বদলে এক ঠিকাদারের অধীনে সার্ভের কাজ পেয়েছেন সৌরভ। তবে তিনি তার জীবনে কখনোই হার মানতে শেখেননি।

চাকরির জগতে প্রত্যাখ্যানের সম্মুখীন হয়ে হাতে রেলের বাতিল টিকিট তুলে নেন সৌরভ। তার উপর ছবি এঁকে, ক্লাস ইলেভেনের বায়োলজি বক্সের নিডল এবং ১১ নং কাঁচি ব্যবহার করে তাতে কাটিং করে সুন্দর সুন্দর শিল্পকর্ম গড়ে তুলেছেন তিনি। গাছের ছাল ও থার্মোকলের উপর কাটিং করে তিনি তার শিল্পীসত্তার নিদর্শন রাখছেন। তার খ্যাতি ছড়িয়ে পড়েছে সুদূর ত্রিপুরা, রাজস্থানে।

এখন গিনিস বুকে নাম তোলার জন্য ৪ হাজার ২০০ টিকিটের উপর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, নরেন্দ্র মোদি, আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জো বিডেন, ভারতীয় শিল্পকলা, স্থাপত্য, মেসি, রোনাল্ডো এবং বিখ্যাত গায়ক গায়িকাদের ছবি ফুটিয়ে তুলছেন সৌরভ।