উন্নত মানের সাইন্টিফিক শহর তৈরি করতে চলেছে সৌদি আরব

9
উন্নত মানের সাইন্টিফিক শহর তৈরি করতে চলেছে সৌদি আরব

আকাশে উড়ে বেড়াচ্ছে গাড়ি, হাওয়ায় ভেসে চলেছে মানুষ, এক ইশারাতেই কাজ করছে হাজারো রোবট। এইসব হয়তো আপনারা কেবলমাত্র হলিউডের সিনেমাতেই দেখেছেন, কিন্তু যদি বলি এইসব এখন বাস্তবে ঘটতে চলেছে। তাহলে আপনার কেমন অনুভূতি হবে? আজ্ঞে হ্যাঁ প্রশ্ন শুনে অবাক হলেও এটাই কিন্তু সত্যি। সৌদি আরব যার নাম শুনলেই চোখের সামনে ভেসে ওঠে গগনচুম্বী আকাশ চিরে ফেলা দারুন দারুন স্কাইস্ক্রেপার। এবার সেই শহরেই তৈরি হতে চলেছে এমন উন্নত মানের সাইন্টিফিক শহর। যেখানে আপনি বৃত্ত হিসেবে রাখতে পারবেন হাজারো রোবটকে, আপনার মনের ইচ্ছাতেই আকাশ দিয়ে ঘুরে বেড়াবে মেঘ, এমনকি আপনি চাইলে সেই হিসেবে হবে বৃষ্টি। এখানে কিন্তু শেষ নয়, এই শহরের জন্যই তৈরি করা হবে একটি কৃত্রিম চাঁদ যার মধ্যে থাকবে না কোনো কলঙ্ক ও অমাবস্যা। লন্ডনের থেকে 17 গুণ বড় আকারের হবে এই শহর।

ব্রিটেনের সংবাদপত্র দ্য সান এর রিপোর্ট হিসেবে জানা গেছে, নিয়ম শহর যেখানে তৈরি করা হবে এই ধরনের আধুনিক সবকিছু, জর্ডন ও মিশরের সীমান্ত সংলগ্ন এলাকাতেই তৈরী করা হবে এই শহর। আগামী 2025 সাল পর্যন্ত এর প্রস্তুতি পর্ব শেষ করার পরিকল্পনা করা হয়েছে। সমস্ত কিছু ঠিক থাকলেই, মানুষজন তারপর থেকে বসবাস করতে পারবে এই শহরে। এই শহরের মূল চালিকাশক্তি হবে সূর্যের আলো ও হাওয়ার ক্ষমতা।

এই শহর সম্পর্কে সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান জানিয়েছেন, পুরো শহর টি রোবট কেন্দ্রিক হিসেবে তৈরি করা হবে। শহরটিকে রোবটিক্স বিকাশের একটি দারুন উদাহরণ হিসেবে পৃথিবীর সামনে তুলে ধরা হবে। এখানে ব্যবস্থা থাকবে উড়ন্ত ট্যাক্সি থেকে শুরু করে আরো অনেক যানবাহনের। সৌদি আরব মরুভূমির দেশ, স্বাভাবিকভাবেই সেখানে বৃষ্টি প্রায় হয় না বললেই চলে। একেবারে রুক্ষ পরিবেশ তবে এবার বিজ্ঞানের উপর নির্ভর করে ক্লাউড সিডিং টেকনিকে বৃষ্টিপাত ঘটানো হবে সৌদি আরবে।

সৌদি আরবের শহর নিয়ম যেখানে এই ধরনের উন্নত মানের প্রযুক্তিকে ব্যবহার করে স্বপ্নের শহর তৈরি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে।যা কিনা একেবারে নতুন পৃথিবী বললেও ভুল বলা হবে না। সৌদি আরব সারা পৃথিবীর মধ্যে উন্নত একটি দেশে নিজেদের প্রমাণ রেখে যেতে চায়। ইতিমধ্যে তাদের বিভিন্ন আর্কিটেকচার, স্মৃতিসৌধ, স্কাইস্ক্রেপার থেকে শুরু করে সবকিছুই অন্যান্য দেশের মানুষকে অবাক করে দিয়েছে। এবার রোবটিক একটি দুনিয়া গড়তে চলেছে এই দেশ, যা দেখে স্বাভাবিকভাবেই পৃথিবীর অনেক উন্নত দেশ অবাক হতে চলেছে।