নিজের চাদকে ধবংস করতে বলয় তৈরি করছে শনি গ্রহ!

12
নিজের চাদকে ধবংস করতে বলয় তৈরি করছে শনি গ্রহ!

আমরা জানি আমাদের পৃথিবীর যেমন উপগ্রহ রয়েছে, যার নাম চাঁদ। সেই হিসেবেই অন্যান্য গ্রহেরও রয়েছে নিজস্ব উপগ্রহ। কিন্তু সেটা সংখ্যায় বিভিন্ন রকম। বৃহস্পতির উপগ্রহের সংখ্যা সবথেকে বেশী। তবে এখানে কথা হচ্ছে শনিকে নিয়ে, আসলে একটি গবেষণা রিপোর্টে জানা গেছে শনি নাকি নিজের চাঁদ কেই হত্যা করছে, আর সেই ধবংসের কারণেই শনির চারদিকে ফের তৈরী হচ্ছে বলয়।

শনির যে বলয় তৈরী হয়েছিল সেটা কিন্তু আজকের নয়, বিজ্ঞানীদের মতে যখন পৃথিবীতে ডাইনাসোর ছিল তখন থেকেই নাকি এই বলয়, তবে কিছুদিন আগেই শোনা যাচ্ছিল এই বলয় ধীরে ধীরে ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সম্প্রতি আবার একটি রিপোর্টে উঠে আসল এই তথ্য। যে শনি তার নিজের চাদকে ধবংস করে নিজের বলয় সে ফের তৈরী করছে। সৌরজগতের দ্বিতীয় বিশাল গ্রহ হল শনি। একে নিয়ে জ্যোতিষশাস্ত্রে কিন্তু নানা খবর আছে। শনিকে ঘিরে রয়েছে মানুষের নানা কৌতূহল।

১৫ সেপ্টেম্বর সায়েন্স জার্নালে একটি তথ্য উঠে এসেছে, সেখানেই বলা হয়েছে শনির বয়স এই মূহূর্তে দাঁড়িয়ে ৪০০ বছর। একটা সময় শনির নিজস্ব কোনো বলয় ছিল না।, ১০ কোটি বছর আগে শনি তার মাধ্যাকর্ষণ বলে সমস্ত উপগ্রহকে টেনে নেয় নিজের কাছে। আর তার পর থেকেই তার চারদিকে তৈরী হয় বলয়। তবে এই বলয় নিয়ে অনেকের মধ্যেই বিতর্কের সৃষ্টি হয়, যার কারণে ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (এমআইটি) স্কট ট্রেমেইন এবং ক্যালটেকের পিটার গোল্ডরিচ আটের দশকের গোড়ায় দাবি করেছিলেন শনির থেকে বলয় গুলো নাকি ১০ কোটি বছরের ছোট।

সেখানেই নাকি মাঝে মাঝে বরফ ও পাথরের সাথে সংঘর্ষ হয়, এদিকে ২০০৪ সাল থেকে ২০১৭ সাল পর্যন্ত নাসার মহাকাশ যান ক্যাসিনি প্রদক্ষিণ করেছে শনিকে। সেখান থেকেই তথ্য পাওয়া গেছে শনির বলয়ের ঘনত্ব দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। শনির বলয়ের মধ্যে শনির ভূপৃষ্ঠের ধুলো এসে জমা হয়, আর সেখান থেকেই বলয়ের সূত্রপাত।