মনিবের সঙ্গে প্রতিদিন বাইকে করে “রোড ট্রিপ” এ অংশ নেয় সারমেয়, ভাইরাল ছবি

10
মনিবের সঙ্গে প্রতিদিন বাইকে করে

সারমেয় বলে কি তার শখ-আহ্লাদ থাকতে নেই? মানুষের তুলনায় সে কোন অংশে কম? যেমন-তেমন সারমেয় সে নয়। সে তার মনিবের সঙ্গে প্রতিদিন সকালে বাইকে করে “রোড ট্রিপ” এ অংশ নেয়। একেবারে পাকা মোটর আরোহীর মতোই বাইকে চড়ে বসে বোগি। ফিলিপাইন্সে সে “বাইকার বোগি” নামেই পরিচিত। ফিলিপাইন্সের বাসিন্দাদের কাছে সে অতি পরিচিত। ১১ বছর বয়সী বোগির ফ্যান ফলোয়ার্সের সংখ্যা কিন্তু কিছু কম নয়।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়া কাঁপাচ্ছে “বাইকার বোগি”র ছবি। পরনে কালো রঙের স্পোর্টস জ্যাকেট, চোখে রিফ্লেক্টিভ সানগ্লাস, মাথায় কমলা রঙের হেলমেট। তাও আবার যেমন তেমন হেলমেট নয়, তার কান দুটি যাতে হেলমেটের তলায় চাপা না পড়ে যায় সেই জন্য হেলমেটের দুই ধারে আবার দুটি ছিদ্রও রয়েছে, যার ফাঁক দিয়ে বেরিয়ে এসেছে তার দুটি কান। বলা বাহুল্য, বোগির এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়ে গিয়েছে।

তার মনিব গিলবার্ট ডেলোস রেয়েসের সঙ্গে বাইক ভ্রমণের একটি ছবিও সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়েছে। যেখানে দেখা যাচ্ছে, বোগি তার পেছনের দুটি পা বাইকের সিটে রেখে সামনের দুটি হাত দিয়ে বাইকের হ্যান্ডেল ধরে গাড়ির সঙ্গে নিজের অদ্ভুত সমতা বজায় রেখেছে। ওই অবস্থাতেই মালিকের সঙ্গে অনায়াসে বাইক ভ্রমণ করছে সে। বোগি নাকি প্রায়ই তার মনিবের সঙ্গে পাহাড়ি পথে এবং সমুদ্র তটে এভাবেই বাইক ভ্রমণে বেরোয়।

রেয়েস জানিয়েছেন, বোগির যখন মাত্র চার মাস বয়স তখন থেকেই তাকে বাইকে বসতে শিখিয়েছেন তিনি। তিনি যেখানেই যেতেন বোগিকে সঙ্গে করে নিয়ে যেতেন। তাই খুব ছোট্ট বেলা থেকেই বাইকে চড়ে অভ্যাস হয়ে গিয়েছিল বোগির। বোগিকে নিজের সন্তানের মতোই প্রতিপালন করেছেন রেয়েস। দীর্ঘ ১১ বছর ধরে তাদের পরিবারেরই একজন হয়ে উঠেছে সে। বিশেষত বোগি রেয়েসের বাইক ভ্রমণের বিশেষ সঙ্গীও বটে।