এই মাস থেকেই গণহারে ভ্যাকসিন প্রয়োগ চালু হতে চলেছে রাশিয়ায়

14
এই মাস থেকেই গণহারে ভ্যাকসিন প্রয়োগ চালু হতে চলেছে রাশিয়ায়

বিশ্বে প্রথম করোনা ভ্যাকসিন অনুমোদন করে রেকর্ড গড়েছে রাশিয়া। মস্কোর গামালেয়া ইনস্টিটিউটের তরফ থেকে আবিষ্কৃত “স্পুটনিক’ ভি” ভ্যাকসিন টিকে যত শীঘ্র সম্ভব বাজারজাত করতে উদ্যোগী রাশিয়া। এদিকে, চিনের দাবি সিনোভ্যাক, সিনোফার্ম ও ক্যানসিমো বায়োফার্ম বায়োটেকনোলজি সংস্থাগুলি যে ভ্যাকসিন আবিষ্কার করেছে, সেই ভ্যাকসিনও মানবদেহে প্রয়োগের জন্য সম্পূর্ণ তৈরি।

ইতিমধ্যেই, ক্যানসিনো বায়োফার্মকে জরুরি ভিত্তিতে টিকা দেওয়ার পেটেন্ট দিয়েছে চীনা সরকার। পাশাপাশি, জরুরী ভিত্তিতে সিনোভ্যাকের টিকাতেও ছাড় দিতে পারে চীন। ফলে, চীন এবং রাশিয়ার মধ্যে কার্যত ভ্যাকসিন বাজারজাতকরণ নিয়ে রেষারেষি চলছে। স্বাস্থ্যমন্ত্রকের অনুমতি পেয়ে, এই মাস থেকেই রাশিয়ায় গণহারে ভ্যাকসিন প্রয়োগ চালু হতে চলেছে।

উল্লেখ্য, গত মাসের ১১ তারিখ রাশিয়ার তরফ থেকে জানানো হয়, আগামী বছরের জানুয়ারি মাসের আগে ভ্যাকসিন বাজারজাত করা সম্ভব নয়। সেই বক্তব্য খারিজ করে দিয়ে মঙ্গলবার, গ্যামেলিয়া ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার অব এপিডেমোলজি অ্যান্ড মাইক্রোবায়োলজি এবং রাশিয়ান ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের তরফ থেকে জানানো হলো, “স্পুটনিক ভি” ভ্যাকসিনটি গণহারে প্রয়োগের জন্য একেবারে তৈরি।

রাশিয়ার তরফ থেকে দাবি করা হয়েছে, এই ভ্যাকসিনের প্রথম দুই পর্বের ট্রায়াল সফল। সম্প্রতি, ভ্যাকসিন এর তৃতীয় পর্বে ট্রায়ালের ফলাফল প্রকাশিত হয়েছে। বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, এ পর্যন্ত বহু মানুষের শরীরে ইনজেকশনের মাধ্যমে ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা হয়েছে। ভ্যাকসিনটি সম্পূর্ণভাবে পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন এবং করোনার বিরুদ্ধে কার্যক্ষম। অতএব এই মাস থেকেই ভ্যাকসিন প্রয়োগ করা যেতে পারে। তবে কবে থেকে সাধারণ মানুষের শরীরে এই টিকা প্রয়োগ করা হবে সে সম্বন্ধে এখনও কিছু জানানো হয়নি।