আমেরিকা এবং কানাডা মিলিয়ে ৮৭ জনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলো রাশিয়া

9
আমেরিকা এবং কানাডা মিলিয়ে ৮৭ জনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করলো রাশিয়া

রাশিয়া এবং ইউক্রেনের যুদ্ধকে কেন্দ্র করে গোটা বিশ্বের রাজনীতিতে এখন উথাল-পাথাল অবস্থা। এই অবস্থার সংবাদ যাতে বাইরে না যায় সেজন্য সেখানকার মানুষদের সোশ্যাল মিডিয়া ব্যবহারের উপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে পুতিন সরকার।সামাজিক মাধ্যম ফেসবুক, টুইটার সমস্ত কিছুর ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। তবে এইবার নতুন করে আমেরিকার ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে। আমেরিকার ২৯ জনের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে যার মধ্যে রয়েছেন মার্ক জুকারবার্গ এবং কমলা হ্যারিস।

ইউক্রেনের বিধ্বস্ত অবস্থায় এবার আমেরিকা সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। মার্কিন রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন ৮০০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়ে এবং সামরিক দিয়ে ইউক্রেনকে সাহায্যের কথা জানিয়েছেন। এই সাহায্যের কথা ঘোষণা করার পরবর্তীতেই রাশিয়া এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। রাশিয়া আমেরিকা এবং কানাডার মিলিয়ে ৮৭ জন আইনসভার সদস্যর উপর এই নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। ইউক্রেনের সাথে রাশিয়ার যুদ্ধের প্রথম পর্ব থেকেই আমেরিকার উদ্দেশ্য ছিল রাশিয়াকে আর্থিকভাবে চাপে রাখবে এবং সেই জন্যই পুতিন সরকারের ওপর নানা রকম নিষেধাজ্ঞা জারি করেছিল আমেরিকা এবং এটাই এবার প্রধান অস্ত্র হিসেবে ব্যবহার করছে রাশিয়া।

রাশিয়ার দাবি ইউক্রেনের বর্তমান অবস্থার জন্য দায়ী আমেরিকা। ইউক্রেন এবং রাশিয়ার যুদ্ধে আমেরিকা ইউক্রেনকে অর্থ এবং সামরিক দিয়ে সাহায্য করার প্রতিশ্রুতি দিয়েছে, অন্যদিকে রাশিয়াকে চাপে রাখার জন্য রাশিয়ার বিমানে নিষেধাজ্ঞা জারি করা হয়েছে অন্যদিকে রাশিয়া থেকে তেল এবং গ্যাস সরবরাহ না করা যায় সেদিকেও নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে আমেরিকা। এখন বিশেষজ্ঞদের মতে আমেরিকার এইরকম পদক্ষেপের বিরুদ্ধে নতুন করে আবার পুতিন সরকার আমেরিকার বিরুদ্ধে এই সমস্ত নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে।