“সিঁদুর একটি দুর্বল চিহ্ন ছাড়া অন্য কিছু নয়” উক্তির সঙ্গে সহমত পোষণ করলেন রোশন

12

এই বছরের আরো একটি বড় খবর শ্রাবন্তী এবং রোশনের বিবাহ সম্পর্ক। বেশ কয়েকদিন ধরে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ নিয়ে গুঞ্জন ছড়িয়ে সে সকল মহলে। তারা নাকি পুজোর আগে থেকেই একসাথে থাকছেন না। কিন্তু কেউই এই বিষয়ে মুখ খুলতে নারাজ। তাই প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষভাবে কারণ যাই হোক না কেন, শ্রাবন্তী অথবা রোশন আগামী জীবন টা একসাথে কাটাবেন কিনা সেই নিয়ে এখনো কোনো স্পষ্ট ইঙ্গিত পাওয়া যায়নি। অনেকেই ভাবছেন হয়তো এটি কিছু সময়ের জন্য মনোমালিন্যের বিষয়, কিছুদিন পর আবার সবকিছু ঠিক হয়ে যাবে। এরই মধ্যে রবিবার শ্রাবন্তী ইনস্টাগ্রামে তার বাবা-মায়ের সঙ্গে একটি সেলফি পোস্ট করেছেন। সেখানে হাসিমুখে শ্রাবন্তীকে পোজ দিতে দেখা গেল, কিন্তু সব থেকে যেটি নজর কেড়েছে তাহল, শ্রাবন্তীর মাথার সিঁদুর। ছবির ক্যাপশনে অভিনেত্রী লিখেছেন যে, দারুন সারপ্রাইজ, আমার জীবনের সবথেকে বড় সাপোর্ট। আমি তাদের আশীর্বাদে ধন্য।

বিয়ে ভাঙার জল্পনা কল্পনার মধ্যে কখনো খালি মাথায় দেখেনি দর্শকেরা। স্টার জলসার একটি রিয়েলিটি শো হোস্ট করেন নায়িকা। সেখানেও কিন্তু একমাত্র সিঁদুর নিয়ে দেখা গেছে তাকে। কিন্তু সিঁদুর পরা অথবা না পড়া একটি মানুষের ব্যক্তিগত ব্যাপার, এই বিষয় নিয়ে শ্রাবন্তী কে কটাক্ষ করলেন রোশন। শ্রাবন্তীর এই পোস্ট করার কয়েক ঘন্টার মধ্যেই রোশন তার ইনস্টাগ্রামে আত্মজা বন্দ্যোপাধ্যায়ের একটি উদৃতি পোস্ট করেছেন। সেখানে তার লেখা,”বিয়ের সম্পর্ক বিশ্বাসের ওপর টিকে থাকে। সিঁদুর একটি দুর্বল চিহ্ন ছাড়া অন্য কিছু নয়”।

পোস্টার ক্যাপশন হিসেবে রোশন লিখেছেন যে, এই বক্তব্যের সঙ্গে আমি সম্পূর্ণ সহমত। ব্যক্তিগতভাবে আমি সেই সব মেয়েদের ঘৃণা করি, যারা মাথায় সিঁদুর লাগায় অথচ তাদের স্বামী অথবা প্রাক্তন সেটা পছন্দ করে না, যখন সেটি তাদের জন্য লাগানো হয়”।

কোনরকম বাকবিতণ্ডায় না গিয়ে লেখক এর উদ্যোগে হাতিয়ার করলেও নিজের বক্তব্য স্পষ্ট করে দেন রোশন। তবে এখনো শ্রাবন্তী তরফ থেকে কোনো উত্তর পাওয়া যায়নি। তিনি আপাতত ব্যস্ত সুপারস্টার পরিবার এর নতুন সিজন নিয়ে। সোমবার থেকে নতুন ধামাকা নিয়ে শুরু হয়েছে এই গেম শো।