করোনা সতর্কতা বিধি না মানলে একজনের দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে ৪০৬ জন, দাবী গবেষকদের

9
করোনা সতর্কতা বিধি না মানলে একজনের দ্বারা আক্রান্ত হতে পারে ৪০৬ জন, দাবী গবেষকদের

এক ব্যক্তির থেকে অপর ব্যক্তির শরীরে দ্রুত ছড়াচ্ছে করোনা। বর্তমান পরিস্থিতিতে করোনা প্রতিরোধী টিকা রয়েছে মানুষের হাতে। তবুও করোনাকে বাগে আনা যাচ্ছে না। এমনটা কেন হচ্ছে? ভয়ঙ্কর তথ্য দিলেন বিশেষজ্ঞরা। বিশেষজ্ঞদের দাবি, বর্তমানে যে হারে করোনা ছড়িয়ে পড়ছে তাতে মানুষকেই আরো বেশি সতর্ক হতে হবে। মাস্ক ছাড়া বাইরে বেরোনো যাবেনা। সামাজিক দূরত্ব বিধি ভঙ্গ করা যাবে না।

তা না হলে বর্তমানে একজন করোনা আক্রান্ত রোগী একমাসের মধ্যে অন্ততপক্ষে ৪০৬ জন মানুষকে আক্রান্ত করতে পারেন! এমনটাই দাবি করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। বিগত এক বছরেরও কিছু বেশি সময় ধরে স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা সাধারণ মানুষকে বারংবার নির্দিষ্ট সামাজিক দূরত্ব এবং করোনা সতর্কতা বিধি মেনে চলার পরামর্শ দিয়ে আসছেন। তবুও নির্বিকার মানুষ।

স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞদের দাবি, করোনা সতর্কতা বিধি যদি একজন ৫০ শতাংশ মেনে চলেন সে ক্ষেত্রে একজন করোনা রোগীর থেকে ১৫ জনের শরীরে ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে পারে। সে জায়গায় যদি ৭৫ শতাংশ নিয়ম মেনে চলেন তাহলে তিনি মাত্র আড়াই জনের শরীরে সংক্রমণ ছড়িয়ে দিতে পারবেন। যদি দুইজন ব্যক্তি মাস্ক ব্যবহার করেন তাহলে তারা একে অপরের সংস্পর্শে আসলেও সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার সম্ভাবনা মাত্র ১.৫ শতাংশ থাকবে।

যদি দুজনের মধ্যে একজন সুস্থ ব্যক্তি মাস্ক পরেছেন এবং অপরজন সংক্রামিত ব্যক্তি যদি মাস্ক না পরেন সে ক্ষেত্রে সুস্থ ব্যক্তির শরীরে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা থাকছে ৩০ শতাংশ। আর যদি দুজনেই মাস্ক না পরে থাকেন তাহলে সেক্ষেত্রে সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়ার আশঙ্কা ৯০ শতাংশই থেকে যাচ্ছে বলে সতর্ক করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা।

অতএব বর্তমান কঠিন পরিস্থিতিতে করোনার বিরুদ্ধে লড়াই করতে চাইলে ঘর থেকে বাইরে বেরোতে হলেই মাস্ক পরা বাধ্যতামূলক বলে মনে করছেন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা। তার সঙ্গে অবশ্যই একে অপরের সঙ্গে দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞরা জানাচ্ছেন বাড়িতে থাকলেও স্বস্তি নেই। মাত্র ছয় ফিট দূরত্বের মধ্যেই সংক্রমণ ছড়িয়ে পড়তে পারে।