সম্প্রতি বোলে চুরিয়া গানের হুবহু দৃশ্য তুলে ধরে তাক লাগিয়ে দিলেন ইন্দোনেশিয়ার তরুণ প্রজন্ম

5
সম্প্রতি বোলে চুরিয়া গানের হুবহু দৃশ্য তুলে ধরে তাক লাগিয়ে দিলেন ইন্দোনেশিয়ার তরুণ প্রজন্ম

উনবিংশ শতকের তরুণ-তরুণীদের কাছে কাভি খুশি কাভি গাম, কাল হো না হো, কুচ কুচ হোতা হেকারান জোহরের এই সিনেমাগুলি ছিল একটি আদর্শ সিনেমা। পারিবারিক সিনেমা হোক কিংবা ভালোবাসার গল্প, সবকিছুতেই সিনেমাগুলি ছিল সবার আগে এগিয়ে। কাভি খুশি কাভি গাম, সিনেমাটির মধ্য দিয়ে শাহরুখ খান এবং কাজলের জনপ্রিয় জুটি সকলের সামনে উঠে আসে, সেইসঙ্গে হৃত্বিক রোশন এবং কারিনা কাপুরের ভালোবাসা নতুন প্রেমিক প্রেমিকাদের মনে ভালোবাসার সঞ্চার করে। তার সঙ্গে অমিতাভ বচ্চন এবং জয়া বচ্চনের অসাধারণ অভিনয় সকলের যে মন ছুয়ে নিয়েছিলো তা বলাই বাহুল্য।

কাভি খুশি কাভি গাম এর বিখ্যাত গান “বোলে চুরিয়া বলে কঙ্গনা”, সিনেমাটির তালে তালে নেচে ছিল সমস্ত তরুণ-তরুণীরা। সম্প্রতি ইন্দোনেশিয়ার কয়েকজন তরুণ এবং তরুণীর উনবিংশ শতকের এই গানটিকে আবার নতুনভাবে নিয়ে এলো সকলের সামনে। নতুনভাবে কথাটি এখানে প্রযোজ্য নয়, কারণ এক্সপ্রেশন থেকে শুরু করে ড্রেস, সবকিছুই যেন একেবারে হুবহু মিল আসল গানটির সঙ্গে।

শাহরুখ খানের দাদার চরিত্র হোক কিংবা ঋত্বিক রোশনের ভাইয়ের চরিত্র, কাজলের একটি বড় দিদির ভূমিকায় অভিনয় করা হোক কিংবা সবার প্রিয় একটি ছোট বোনের চরিত্রে অভিনয় করা কারিনা কাপুর, অমিতাভ বচ্চন থেকে শুরু করে জয়া বচ্চনের সাবলীল অভিনয় সবকিছুই যেন হুবহু তুলে ধরেছেন সকলের সামনে এই ইন্দোনেশিয়ার তরুণ প্রজন্ম।

সোশ্যাল মিডিয়ায় এই ভিডিওটি ভাইরাল হতেই সকলকে রীতিমতো হতবাক করে দেয় ভিডিওটি। প্রত্যেকে চিন্তায় পড়ে যায় যে, কিভাবে একটি ভিডিও সঙ্গে অন্য ভিডিওর এতটা মিল থাকতে পারে। ভারতবর্ষের কোন অভিনেতা অভিনেত্রী না হয়েও কিভাবে তাদের কথাবার্তা চালচলন পুরোটা কপি করতে পেরেছেন এই তরুণ প্রজন্ম, তার জন্য এই তরুণ অভিনেতা অভিনেত্রীদের সকলে বাহবা দিতে পিছপা হননি। অনেকে আবার মজা করেই এও বলেছেন যে, এ যেন কম্পিউটার কিপ্যাড এর কন্ট্রোল সি/ কন্ট্রোল ভি। কপি পেস্ট করলেও হয়তো এতটা সুন্দর ভাবে কপি করা যায় না।