সম্প্রতি দক্ষিণ ২৪ পরগনায় এক গৃহস্থের বাড়ি থেকে উদ্ধার হলো প্রায় ২৭ টি কেউটে সাপ

25
সম্প্রতি দক্ষিণ ২৪ পরগনায় এক গৃহস্থের বাড়ি থেকে উদ্ধার হলো প্রায় ২৭ টি কেউটে সাপ

সম্প্রতি দক্ষিণ ২৪ পরগনার পাথরপ্রতিমা ব্লকের ঢোলাহাটের একটি বাড়ি থেকে একসাথে প্রায় ২৭টি কেউটে সাপ উদ্ধার হলো। পরিত্যক্ত একটি ড্রামের ভেতর ওই বিষাক্ত কেউটে সাপ গুলিকে দেখতে পান বাড়ির সদস্যরা। একসঙ্গে এতগুলি বিষধর সাপ দেখে স্বভাবতই বেশ ভয় পেয়ে যান তারা। তবে ভয় পেলেও সাপগুলির কোনো ক্ষতি করতে মন চায়নি তাদের। তাই বনদপ্তরের কর্মীদের সহায়তায় সাপগুলিকে নিরাপদ দূরত্বে ছেড়ে আসার সিদ্ধান্ত নেন গৃহকর্তা।

পাথরপ্রতিমা ব্লকের ঢোলা হাটের রথখোলা এলাকার বাসিন্দা প্রভাকর মন্ডলের বাড়ির উঠানের একটি পরিত্যক্ত ড্রামের ভিতর এতগুলি কেউটে সাপ বাসা বেঁধেছিল। বাড়ির সদস্যরা অবশ্য তা টের পাননি। সম্প্রতি, গৃহকর্তার ছেলে দীপঙ্কর মন্ডল বাড়ির উঠানের ঘাস পরিষ্কার করতে গিয়ে সাপগুলির খোঁজ পান। ঘাস কেটে পরিষ্কার করার সময় বহুদিনের পরিত্যক্ত ওই ড্রামের ভেতর থেকে সাপের ফোঁসফোঁসানি শুনতে পান তিনি।

কৌতুহলের বশবর্তী হয়ে সাহসে ভর করে নিজে থেকেই ড্রামের কাছে গিয়ে ভেতরে উঁকি মেরে দেখেন ড্রামের ভিতর অসংখ্য সাপ কিলবিল করছে। ড্রামের ভেতর দুটি বড় কেউটেসহ অসংখ্য ছোট ছোট কেউটে সাপের বাচ্চা ছিল। এরপর খবর পেয়ে বাড়িতে ভিড় জমান গ্রামবাসীরা। একসঙ্গে এতগুলো সাপ দেখে আতঙ্কিত হয়ে তারা বিষধর গুলিকে মেরে ফেলারও পরামর্শ দেন। তবে এতগুলি সাপকে একসঙ্গে মেরে ফেলার বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ান প্রভাকর মন্ডলের পরিবার।

সত্বর বনদপ্তর কর্মীদের খবর পাঠানো হয়। তবে তারা এসে পৌঁছানোর আগেই গ্রামবাসী বড় কেউটে সাপ দুটিকে ধরে একটি কলসির ভেতর পুরে শক্ত জাল দিয়ে তার মুখ বন্ধ করে দেন। বাকি পঁচিশটি বাচ্চাকে আলাদা কলসিতে ভরে দেওয়া হয়। শুক্রবার বনদপ্তরের কর্মীরা এসে সাপ ভর্তি কলসি গুলিকে উদ্ধার করে নিয়ে যান। সেগুলিকে লোকালয়ের বাইরে নিয়ে গিয়ে সুন্দরবনের কোনো ঘন জঙ্গলে ছেড়ে দেওয়া হবে বলে জানা গেছে।