সম্প্রতি অমিতাভ বচ্চনের করোনা সতর্কতা কলার টিউন নিয়ে ক্ষুব্ধ এক ব্যক্তি যা করলেন

19
সম্প্রতি অমিতাভ বচ্চনের করোনা সতর্কতা কলার টিউন নিয়ে ক্ষুব্ধ এক ব্যক্তি যা করলেন

সম্প্রতি আমরা সকলেই একটি সমস্যার সম্মুখিন হই, সেটা হল কখনো কাউকে ফোন করতে গেলে প্রায় এক মিনিট মতো আমাদের শুনতে হয় করোণার সর্তকতা। প্রথম প্রথম এইসব ভালো লাগলো এখন রীতিমত সকলের কাছেই বিরক্তির বিষয় হয়ে দাঁড়িয়েছে এই কলার টিউন। কাউকে কোন প্রয়োজনে ফোন করলে আমাদের অপেক্ষা করে থাকতে হয় বেশ কিছুক্ষণ। সম্প্রতি করোনা সতর্কতা বার্তা নিয়ে আমাদের কাছে হাজির সকলের প্রিয় অভিনেতা অমিতাভ বচ্চন। কিন্তু প্রত্যেকটি ফোন করার পূর্বে এই রকম কথা শুনতে অনেকেই পছন্দ করেন না। তাই এই অসুবিধা নিয়ে এমনই একজন ব্যক্তি ফোন করেছেন কাস্টমার কেয়ারে।

কাস্টমার কেয়ারে একজন মহিলা ফোন ধরার পর ব্যক্তি একটি অভিযোগ করে বলেন যে, প্রত্যেকদিন প্রত্যেকবার ফোন করার আগে কেন আমাদের শুনতে হবে অমিতাভ বচ্চনের এই কথা? বারবার একই কথা শুনতে কারোর ভালো লাগেনা। উত্তরে যখন কাস্টমার কেয়ারের সুন্দরী মহিলা বলেন যে, এটি আমাদের কিছু করার নেই আপনাকে শুনতেই হবে একথা। তার উত্তরে ব্যক্তি আরো রেগে গিয়ে বলেন যে, কেন আমরা শুনব? যে ব্যক্তি নিজের করণা আক্রান্ত হয়েছিলেন, তার থেকে কেন আমাদের পরামর্শ নিতে হবে। এমনকি শুধু তিনি নয়, তার পুরো পরিবার করণা আক্রান্ত হয়েছিল। তাহলে যারা নিজেরাই নিয়ম কারণ মানতে পারেননি তার থেকে কেন আমরা সমস্ত নিয়ম বিধি শুনতে যাব?

সবশেষে সেই ব্যক্তি আরো রেগে গিয়ে বলেন যে, আমাদের কাছে আইডল হলেন, এপিজে আবদুল কালাম, সত্যজিৎ রায়। পারলে আপনারা তাদের গলায় কলার টিউন ভয়েস করার চেষ্টা করুন। তাহলে আমরা শুনতে পারি। কিন্তু যে বলিউড ইন্ডাস্ট্রি একের পর এক অভিযোগে লিপ্ত রয়েছেন, তাদের থেকে আমরা কখনই প্রতিদিনের নিয়ম-কানুন শুনতে রাজি নই।

এই কথাটি হয়তো খুব হালকাভাবে বলা হয়েছিল, কিন্তু কোথাও না কোথাও এই কথাটির ভেতরে গভীর তাৎপর্য রয়েছে। সত্যি তো, শুধুমাত্র ভয়েস করে যারা কোটি কোটি টাকা রোজগার করে ফেলছেন, তারা কতটুকু মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছেন এই মহামারী সময়। তাহলে কেন আমরা তাদের কথা শুনবো, কেন তাদের কথা মানবো? তাতে কি আমরা নিজেরাই নিজেরা সতর্ক হতে পারি।