আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প! একমাসের পাওয়া যাবে একদিনেই

26
আগামী ১৫ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে 'দুয়ারে রেশন' প্রকল্প! একমাসের পাওয়া যাবে একদিনেই

১৫ সেপ্টেম্বর থেকে পরীক্ষামূলকভাবে শুরু হচ্ছে রাজ্য সরকারের ‘দুয়ারে রেশন’ প্রকল্প। ওই দিন থেকে সারা রাজ্যে কিভাবে শুরু হবে এই প্রকল্প, কোন কোন প্রক্রিয়া এবং পদ্ধতি অবলম্বন করতে হবে, সেই সংক্রান্ত একটি বিস্তারিত গাইড লাইন সম্প্রতি পেশ করা হয়েছে। রাজ্য খাদ্য দফতরের তরফ থেকে সম্প্রতি এই মর্মে একটি নির্দেশিকা গিয়ে পৌঁছেছে জেলাগুলিতে। রাজ্য সরকারের এই পাইলট প্রজেক্টের আওতায় রাজ্যের ঘরে ঘরে এক মাসের রেশন পৌঁছে দেওয়ার নির্দেশ পাঠানো হয়েছে।

এই নির্দেশিকায় জানানো হয়েছে যে রেশন ডিলাররা তাদের নিজের নিজের এলাকার ভৌগোলিক অবস্থান উপভোক্তার সংখ্যা এবং কাজের পরিমাণ বিচার-বিবেচনা করে এক বা দুই জন কর্মীর সহায়তায় নিজের ভাড়া করা গাড়িতে গ্রাহকের ঘরে ঘরে রেশন পৌঁছে দেবে। ই-পস যন্ত্রের মাধ্যমে যথাযথ বায়োমেট্রিক হওয়ার পরে তাদের প্রাপ্য পরিমাণ তাদের ঘরের দুয়ারে পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানানো হয়েছে।

সারা মাসের চাল-গম, চিনি একবারেই দিতে হবে। একটি পরিবারের যে কোনও সদস্য ই-পস যন্ত্রে বায়োমেট্রিক দিতে পারেন। তাহলে ওই পরিবারের সব সদস্য এই প্রকল্পের আওতায় তাদের প্রাপ্য খাদ্যশস্য পেয়ে যাবেন। যদি কোনো কারণে রেশন পৌঁছানোর দিন তারা বাড়িতে না থাকেন তাহলে দোকান খোলা থাকার দিন যেকোনো সময় পেলেই তারা তাদের প্রাপ্য রেশন তুলতে পারবেন। রাজ্যের খাদ্য ও সরবরাহ দফতরের দ্বারা বিভিন্ন সময় নির্ধারিত দিনগুলিতেই রেশন দোকান খোলা থাকবে বলে জানানো হয়েছে।

ডোরস্টেপ ডেলিভারির জন্য নির্দিষ্ট দিন নির্ধারণ করে দেওয়া হবে। সেই দিনের মধ্যেই গ্রাহকের বাড়ি বাড়ি রেশন পৌঁছে দিতে হবে। নির্দিষ্ট মোবাইল নেটওয়ার্ক পরিষেবা কোনও কারণে বিঘ্নিত হলে সেক্ষেত্রে রেশন ডিলারকে ই-পস মেশিনের বিভিন্ন ইন্টারনেট কানেক্টিভিটি সিম নিতে হবে। গ্রাহকের বাড়ি বাড়ি ডেলিভারি পৌঁছে দেওয়ার জন্য ডেলিভারি ভ্যান কেনার জন্য ডিলারকে ভর্তুকি আকারে আর্থিক সহায়তা দেওয়ার বিষয়টি এখনো বিচারাধীন।