অসুস্থ সম্পর্কের থেকে মুক্তি পেতে বিয়ের ২৩ দিনের মাথাতেই বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিলেন পুনাম পান্ডে

17
অসুস্থ সম্পর্কের থেকে মুক্তি পেতে বিয়ের ২৩ দিনের মাথাতেই বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিলেন পুনাম পান্ডে

বিয়ের ঠিক ২৩ দিনের মাথাতেই বিবাহ বিচ্ছেদের সিদ্ধান্ত নিলেন বলিউডের জনপ্রিয় সেলিব্রেটি পুনাম পান্ডে! চলতি মাসের এক তারিখেই স্যাম বম্বের সঙ্গে বিবাহসূত্রে আবদ্ধ হন তিনি। তবে বিয়ে ঠিক দশ দিন পরে নিজেদের বিবাহিত জীবন প্রকাশ্যে নিয়ে আসেন পুনাম। সে সময় নব বিবাহিতা পুনাম সোশ্যাল মিডিয়ায় তার বিবাহিত জীবনের খবর জানিয়ে তার স্বামী স্যামকে উদ্দেশ্য করে লিখেছিলেন, আগামী সাত জন্ম তিনি স্যামকেই জীবন সঙ্গী হিসেবে পাশে পেতে চান।

তবে সুখী দাম্পত্য জীবনের ছন্দ পতন ঘটলো গোয়ায় হানিমুনে গিয়েই। পুনমের অভিযোগ, গোয়ার হোটেলে স্যাম তাকে নির্যাতন করেছেন। তাকে মারধর করেছেন। স্ত্রীর অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বর্তমানে পুলিশের হেফাজতে রয়েছেন স্যাম। পুনাম জানিয়েছেন, তার সাথে বরাবরই হিংসা মূলক আচরণ করতো স্যাম। তবে তিনি আশা করেছিলেন, বিয়ের পর সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু সে আশা পূরণ হয়নি তার।

তার অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে বিশিষ্ট সংবাদ মাধ্যম টাইমস অফ ইন্ডিয়াতে একটি সাক্ষাৎকার দিতে গিয়ে পুনম জানিয়েছেন, তার সাথে একটা সামান্য বিষয় নিয়ে কথা কাটাকাটি হয়েছিল স্যামের। তাতে স্যাম এতটাই হিংসাত্মক হয়ে ওঠে যে পুনমকে রীতিমতো মারতে শুরু করে দেয়। শুধু তাই নয়, বিবাদ চলাকালীন স্যাম তার গলা টিপে ধরেন বলে অভিযোগ করেছেন পুনম। পুনামের বক্তব্য অনুসারে, সেসময় রীতিমতো দম বন্ধ হয়ে আসছিল তার। তার পরেও তার মুখে ঘুষি মারা হয়। চুল ধরে হিঁচড়ে টেনে নিয়ে গিয়ে খাটের কোনায় তার মাথা ঠুকে দেয় স্যাম।

স্যামের হাত থেকে কোনো রকমে বেঁচে হোটেলের বাইরে বেরিয়ে হোটেলকর্মীদের তার প্রতি হওয়া অত্যাচারের কথা জানাতে সক্ষম হোন পুনাম। এরপর তারাই পুলিশ ডেকে আনেন এবং স‌্যাম গ্রেফতার হন। পুনমের দৃঢ় সিদ্ধান্ত, যে মানুষটা তার সাথে এরকম পশুর মতো ব্যবহার করেছে, তার সাথে আর থাকবেন না তিনি। এরকম একটি অসুস্থ সম্পর্কের সাথে জড়িত থাকার চেয়ে একা থাকাই শ্রেয় বলে মনে করেন অভিনেত্রী।