মা ভবতারিণীর কৃপা পেতে করুন এই নিয়ম

8
মা ভবতারিণীর কৃপা পেতে করুন এই নিয়ম

দক্ষিণেশ্বরের মা ভবতারিণীকে প্রতিষ্ঠা করেন জান বাজারের রানী রাসমণি। এই মূর্তিটি তৈরি করা হয় বর্ধমান জেলার কাটোয়া মহকুমা শাখার ডাইহাট এর নবীন ভাস্কর নামে এক শিল্পী। তানিমের গুরুদেব অনেক খুজে দাঁইহাটের এই নবীন ভাস্কর এর সন্ধান দিয়েছিলে রাণীমাকে। ১৮৫০ শালী রাণীমা নবীন ভাস্কর কে দক্ষিণেশ্বরের মা কালী মূর্তি তৈরি করতে নির্দেশ দেন।

১৮৫৫ সাল থেকে নবীন ভাস্কর সমস্ত আর্মি কষ্টিপাথরের মা ভবতারিণী মূর্তি তৈরী করা শুরু করেন। মূর্তি তৈরি শেষ হলেই দেখা যায় মূর্তিটি দক্ষিণেশ্বরের গর্ভগৃহের সঙ্গে বেমানান। তারপর রাণীমা কোন শিল্পীকে ভবতারিণীর বড় মূর্তি তৈরির নির্দেশ দেন। সেই মূর্তি ও দেখা যায় অনেক বড় হয়ে যায়। তারপর আরেকটু ছোট মাপের মূর্তি বানানো হলে সেটি দক্ষিণেশ্বরে প্রতিষ্ঠা করা হয়।

কামারপুকুরের গদাধর চট্টোপাধ্যায় রামকৃষ্ণ পরমহংসদেবে পরিণত হয় এই মা ভবতারিণীর আশীর্বাদে। রামকৃষ্ণ পরমহংসদেব দক্ষিণেশ্বরের মা কালীর পূজা করতেন একদিনও মাকে না খাইয়ে গদাধর জলস্পর্শ করতেন না।

দক্ষিণেশ্বরের মা কালী খুবই কৃপাময়ী। সন্তান নিরাপদ সংসারে অশান্তি অভাব-অনটন সমস্ত সমস্যার সমাধানে আছেন মা ভবতারিণী। মা ভবতারিণী প্রানপনে ডাকলেই ঠিকই তার ফল পাওয়া যায়।