ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে অক্সিজেন কিনছে মেস্কিকো শহরের মানুষ

5
ঘণ্টার পর ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে অক্সিজেন কিনছে মেস্কিকো শহরের মানুষ

করোনার চোখ রাঙ্গানি কিন্তু অনেকটাই কমে গেছে বলে আমাদের ধারণা। পূজা শেষ হবার সঙ্গে সঙ্গে বাঙালিরা বেরিয়ে পড়েছে নিজ নিজ গন্তব্যে। দীর্ঘদিন লকডাউনে বন্দি হয়ে থাকার পর সকলেই নিঃশ্বাস নেবার জন্য ঘুরতে বেরিয়ে পড়েছেন। তবে এই বিশ্ব চরাচরে এমন কিছু জায়গা রয়েছে সেখানকার কথা শুনলে হয়ত আরো একবার চিন্তা করতে হবে এই মহামারীর কথা।

মেক্সিকোর রাজধানী এলাকাতে যে হাসপাতালগুলি রয়েছে তাই ইতিমধ্যেই করোনা রোগীতে ভরে গেছে। সেখানে রোগীদের বাড়তে থাকা সংখ্যা এতটাই বেশি, তাদের অক্সিজেন জোগান দেওয়া যাচ্ছে না। অক্সিজেন কিনতে রোগীদের আত্মীয়দের দাঁড়িয়ে থাকতে হচ্ছে ঘন্টার পর ঘন্টা।

এমনই একজন মানুষ হলেন এডদুয়ার্দো মার্টিনেজ। শুক্রবার তাকে দেখা গেছে লাইনে দাঁড়িয়ে অক্সিজেন কিনতে। তার ৫৫ বছর বয়সী মা একজন করোনা রোগী। তিনি জানালেন যে, মেক্সিকো সিটিতে লকডাউন থাকা সত্ত্বেও মার্টিনেজ এর দুই প্রতিবেশী কিছুদিন আগেই করণা আক্রান্ত হয়ে মারা যান।

পাশাপাশি তিনি আরো জানান যে, আমরা যেখানে বাস করছি সেখানকার মানুষজন একেবারেই সতর্ক নয়। বহু মানুষ মাস্ক ছাড়াই ঘুরে বেড়াচ্ছেন। ডিসেম্বর মাস থেকে ৯০ লাখ অধিবাসীর মেস্কিকো সিটিতে সর্বোচ্চ সতর্ক পদক্ষেপ নেয়া হয়েছে। সমস্ত অদরকারি কাজকর্ম বন্ধ করা আছে। শুধুমাত্র সরকারি হিসাবে করণায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছে ২৬ হাজারের বেশি মানুষ।

এখনো পর্যন্ত করোনা আক্রান্তের সংখ্যা দেশব্যাপী ১ লাখ ৪৭ হাজার। প্রতিদিন অক্সিজেন এর চাহিদা আরো প্রবলভাবে বেড়ে যাচ্ছে। কিন্তু যোগান দিতে পারছে না সরকার। একজন ২৩ বছর বয়সী মেডিকেল শিক্ষার্থী বিগত চার দিন ধরে তার ক্লাস করতে পারছে না। বিগত চার দিন ধরে খুঁজে বেড়াচ্ছে অক্সিজেন। অসুস্থ স্বজনের জন্য লাইনে দাঁড়িয়ে থাকতে হয়েছে তাদের। এই ভাবেই কোনরকমে কেটে যাচ্ছে মেস্কিকো শহরের মানুষের জীবন যাপন।