ঘাটালের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রকে তোপ সংসদ দেবের

17
ঘাটালের বন্যা পরিস্থিতি নিয়ে কেন্দ্রকে তোপ সংসদ দেবের

অনবরত বৃষ্টির জেরে বিগত কয়েকদিন ধরেই জলে ভাসছে ঘাটাল। ঘাটালের এই পরিস্থিতির জন্য কেন্দ্রীয় সরকারকেই দায়ী করলেন ওই বিধানসভা কেন্দ্রের তৃণমূল সাংসদ দেব। দেবের দাবি, কেন্দ্রের উদাসীনতায় ঘাটাল মাস্টারপ্ল্যানের কাজ শুরু করা হয়নি। যে কারণে আজ ঘাটালবাসীকে জলের মধ্যে দিন কাটাতে হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি দাবি করেছেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী না হওয়া পর্যন্ত মানুষের এই ভোগান্তি চলবে।

একদিকে অনবরত বৃষ্টি হয়ে চলেছে। অপরদিকে ডিভিসি জল ছাড়ছে। দুইয়ের চাপে দক্ষিণবঙ্গের একাধিক জেলা জলে ভাসমান। মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলের তরফের সাংসদ, বিধায়কদের নিজের নিজের এলাকায় গিয়ে বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছেন। সেই নির্দেশ মতো দেব এদিন ঘাটালের বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখতে যান। বন্যা পরিস্থিতি খতিয়ে দেখার ফাঁকেই দেব কেন্দ্রকে এদিন তুলোধোনা করেন।

তিনি বলেন, ভোটের আগে কেবল বড় বড় কথা বলে থাকেন কেন্দ্রীয় নেতারা। বাংলাকে সোনার বাংলা বানানোর কথা বলেন তারা। কিন্তু ভোটের পর আর তাদের খোঁজ পাওয়া যায় না। দেবের দাবি, এই বিষয়ে কেন্দ্রকে বারংবার জানানো এবং চিঠি দিলেও তাদের ঘুম ভাঙ্গানো সম্ভব হয়নি। তারা শুধু ভোটের আগেই বড় বড় কথা বলে যান। প্রসঙ্গত, ঘাটালে প্রতিবছরই বন্যা হয়। ওই এলাকার পাশ দিয়েই বয়ে চলেছে শিলাবতী নদী।

একটু বেশি বৃষ্টি হলেই পশ্চিম মেদিনীপুরের ঘাটাল, কেশপুর, চন্দ্রকোনা-সহ বিস্তীর্ণ এলাকা জলের তলায় চলে যায়। পরিস্থিতি আয়ত্তে আনতে ১৯৮২ সালে ঘাটাল মাস্টার প্ল্যানের সুপারিশ করা হয়েছিল। তবে সেই প্ল্যান এখনো পর্যন্ত কার্যকর হয়নি। এমনকি দেব নিজেও বহুবার কেন্দ্রের কাছে এই প্রকল্প রূপায়নের আবেদন জানিয়েছেন বলে জানালেন। তবে তাতেও কার্যত লাভ কিছুই হয়নি। ঘাটালবাসীরা যে তিমিরে ছিলেন, সেই তিমিরেই রয়ে গিয়েছেন।